বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > BharatPe থেকে অ্যাশনীর গ্রোভারকে সরানোর জন্য চাপ!'ষড়যন্ত্র হচ্ছে,' দাবি মাধুরীর
ফাইল ছবি : টুইটার (Twitter)

BharatPe থেকে অ্যাশনীর গ্রোভারকে সরানোর জন্য চাপ!'ষড়যন্ত্র হচ্ছে,' দাবি মাধুরীর

গত ২২ ফেব্রুয়ারি ভারতপে থেকে বরখাস্ত হয়েছেন অ্যাশনীরের স্ত্রী মাধুরী জৈন।জৈন।

BharatPe থেকে এবার বরখাস্ত হতে পারেন সংস্থার সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যাশনীর গ্রোভার। বিজনেস টুডে'র এক প্রতিবেদনে এমনটাই উল্লেখ করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, সংস্থার দুই গোপন সূত্র এই খবর মিলেছে।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি ভারতপে থেকে বরখাস্ত হয়েছেন অ্যাশনীরের স্ত্রী মাধুরী জৈন। গত মাসেই বিতর্কিত ফোন কলের পরে তাঁকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছিল। এরপর শেষমেশ তাঁকে বরখাস্ত করা হয়। বাতিল হয় তাঁর ভাগের শেয়ারও। মাধুরী জৈন সংস্থার সূত্রপাত থেকেই সেখানে হেড অফ কন্ট্রোলস ছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে সংস্থার টাকায় অপব্যবহার, বিলাসিতার অভিযোগ আনা হয়।

একইভাবে এবার অ্যাশনীর গ্রোভারের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে পারে ভারতপে-র বোর্ড। এমনিতেও গত মাস থেকেই অ্যাশনীরকে সংস্থা থেকে সরে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। এক বিতর্কিত কল ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই অ্যাশনীর ও তাঁর স্ত্রী'কে সংস্থা থেকে সরে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া শুরু হয় বলে দাবি করা হয়েছে।

এদিকে তাঁদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন মাধুরী জৈন। সংস্থার কর্মী, সহ-প্রতিষ্ঠাতা, পরিচালকদের বিরুদ্ধে অফিসে মদ্যপান, পার্টি, মহিলাদের পণ্যের মতো ব্যবহারে অভিযোগ এনেছেন তিনি। একাধিক ভিডিয়োও পোস্ট করেন টুইটারে।

এর পাশাপাশি সম্প্রতি সংস্থার বোর্ডের বিরুদ্ধে অ্যাশনীরের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ করেন তিনি। মাধুরী টুইটারে এক ফোন কলের রেকর্ড শেয়ার করেন। তিনি লেখেন, '২২ ফেব্রুয়ারি ভাবিক কোলাডিয়া (ভারতপের থার্ড পার্টি ভেন্ডর), চেয়ারম্যান রজনীশ কুমারের বাড়ি থেকে ফোন করেন। সেখানে মিটিংয়ে আসার জন্য অ্যাশনীরকে ডাকেন৷ রজনীশের বাড়িতে কী করছিলেন তিনি? তাঁরা কোন কৌশল/ষড়যন্ত্র নিয়ে আলোচনা করছিলেন? কর্মসূচি এবং ক্ষমতার অপব্যবহারের বিষয়ে প্রশ্ন করা হতেই তিনি কেন অ্যাশনীরকে হুমকি দিলেন?'

গত মাসে কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের এক কর্মীর সঙ্গে বচসার কল রেকর্ড ভাইরাল হয়। তাতে অ্যাশনীর গ্রোভার ও মাধুরী জৈনের গলা শোনা গিয়েছে বলে দাবি করা হয়। ভাইরাল কল রেকর্ডে দাবি করেন, নাইকার আইপিও অ্যালোকেশনের জন্য মূলধনের জন্য কোটাক মাহিন্দ্রার সঙ্গে চুক্তি করেছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেই অ্যালোকেশন না পাওয়ায় বেজায় চটে যান অ্যাশনীর গ্রোভার। ফোনে তীব্র গালিগালাজ, এমনকী খুনের হুমকি দেন ব্যাঙ্ককর্মীকে। সেই ফোন কলে মাধুরী জৈনও ছিলেন বলে দাবি করা হয়।

সম্প্রতি শার্ক ট্যাঙ্ক শোয়ের দৌলতে তুমুল জনপ্রিয়তা পান অ্যাশনীর গ্রোভার। ফলে ভিডিয়োটি আরও বেশি ভাইরাল হয়। আর সেই কারণেই ভারতপে সংস্থার বোর্ড থেকে অ্যাশনীর ও মাধুরীকে সরে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া শুরু হয়।

বন্ধ করুন