বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দেশের জন্য দিয়েছিলেন প্রাণ,মরণোত্তর অশোক চক্র পেলেন কাশ্মীর পুলিশের ASI বাবু রাম
রাষ্ট্রপতির হাত থেকে স্মারক গ্রহণ করেন বাবু রামের বিধবা স্ত্রী রীনা রানি ও ছেলে মানিক (ছবি সৌজন্যে এএনআই) (ANI)

দেশের জন্য দিয়েছিলেন প্রাণ,মরণোত্তর অশোক চক্র পেলেন কাশ্মীর পুলিশের ASI বাবু রাম

  • ২০২০ সালের ২৯ অগস্ট শ্রীনগরে অভিযান চালিয়ে তিনজন কট্টর জঙ্গিকে খতম করেছিলেন পুলিশের এএসআই বাবু রাম৷

মরণোত্তর অশোক চক্র সম্মানে ভূষিত হলেন জম্মু ও কাশ্মীরের অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টর বাবু রাম। এদিন দিল্লিতে রাষ্ট্রপতির হাত থেকে স্মারক গ্রহণ করেন বাবু রামের বিধবা স্ত্রী রীনা রানি ও ছেলে মানিক। ২০২০ সালের ২৯ অগস্ট শ্রীনগরে অভিযান চালিয়ে খতম করেছিলেন তিনজন কট্টর জঙ্গিকে৷ অভিযানে দেশের জন্য নিজের জীবন ত্যাগ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, দেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান পরমবীর চক্রের সমান মর্যাদার অশোক চক্র। এই অশোক চক্র দেওয়া হয় সেই সব বীর যোদ্ধাদের, যাঁরা শান্তির সময় অসামান্য সাহসিকতার পরিচয় দেন অথবা শত্রুদের মোকাবিলা করতে গিয়ে নিজের জীবনের বলিদান দিয়েছেন৷

এদিকে এবছর শৌর্যচক্র পেয়েছেন ভারতীয় সেনার ছয় জওয়ান। তাঁদের মধ্যে পাঁচজন মরণোত্তর শৌর্যচক্র পেয়েছেন। এটি ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান। ১৭ মাদ্রাস রেজিমেন্টের নায়েব সুবেদার শ্রীজিথ এম, রাজপুত রেজিমেন্ট বা ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের হাবিলদার অনিলকুমার তোমর, কোর অফ ইঞ্জিনিয়ার বা ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের হাবিলদার কাশীরায় বাম্মানাল্লি, জাঠ রেজিমেন্ট বা ৩৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের হাবিলদার পিঙ্কু কুমার, ১৭ মাদ্রাস রেজিমেন্টের সিপাই মারুপ্রোলু যশবন্ত কুমার রেড্ডি এবং ৫ অসম রাইফেলসের রাইফেলম্যান রাকেশ শর্মাকে শৌর্যচক্রে ভূষিত করা হয়েছে।

বন্ধ করুন