সিএএ-এর বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম প্রতিবাদ শুরু হয় অসমে।
সিএএ-এর বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম প্রতিবাদ শুরু হয় অসমে।

CAA নিয়ে অসম ও ত্রিপুরার অভিযোগের পৃথক সুপ্রিম শুনানি

  • সিএএ-এর বিরুদ্ধে অসম ও ত্রিপুরার অভিযোগ পৃথক ভাবে শুনবে বলে জানাল সুপ্রিম কোর্ট।
  • রেজিস্ট্রার জেনারেল চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশ না করা পর্যন্ত অসমে এনআরসি চালু হবে না।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে অসম ও ত্রিপুরার অভিযোগ পৃথক ভাবে শুনবে বলে জানাল সুপ্রিম কোর্ট।

বুধবার সুপ্রিম কোর্টে সংধোতিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে জমা পড়া ১৪৪টি আবেদনের শুনানিতে প্রধান বিচারপতি এস এ বোবডের নেতৃত্বাধীন শীর্ষ আদালতের ৫ সদস্যের বেঞ্চের সামনে কেন্দ্রের তরফে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল বলেন, রেজিস্ট্রার জেনারেল চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশ না করা পর্যন্ত অসমে এনআরসি চালু হবে না।

গত ৩১ অগস্ট অসমের প্রকাশিত এনআরসি তালিকায় ৩,১১,২১,০০৪ জন বাসিন্দার নাম থাকলেও বাদ পড়েন রাজ্যের ১৯,০৬,৬৫৭ জন। সেই দলে রয়েছেন বহু মানুষ, যাঁরা এনআরসি কর্তৃপক্ষের কাছে জরুরি নথিপত্র জমা দেননি। সেই কারণে ২০১৮ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত তালিকার সঙ্গে সংখ্যার বিচারে বিস্তর ফাঁক দেখা যায় সাম্প্রতিক তালিকায়।

এনআরসি-এর নিয়ম অনুযায়ী, অসমের বাসিন্দাদের প্রমাণ করতে হয় যে ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চ তারিখের আগে তাঁদের পূর্বপুরুষরা অসমে প্রবেশ করেছিলেন। রাজ্যের আদি বাসিন্দা এবং অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের মধ্যে পার্থক্য করতেই এই নিয়ম জারি হয়েছে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম প্রতিবাদ শুরু হয় অসমে এবং তার জেরে পুলিশের গুলিতে এ পর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রতিবাদের জেরে হিংসায় গত ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত মোট ২৪৪টি মামলা দায়ের হয়েছে এবং ৩৯৩ জনেকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

বন্ধ করুন