বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিগত সরকারের দেখানো পথেই অসমে মাদ্রাসার একাংশকে নিয়মিত স্কুলে বদলানোর উদ্যোগ
 হিমন্ত বিশ্বশর্মা, অসমের মুখ্যমন্ত্রী (ফাইল ছবি)
 হিমন্ত বিশ্বশর্মা, অসমের মুখ্যমন্ত্রী (ফাইল ছবি)

বিগত সরকারের দেখানো পথেই অসমে মাদ্রাসার একাংশকে নিয়মিত স্কুলে বদলানোর উদ্যোগ

 বিগত দিনে সরকার পোষিত ছিল এমন মাদ্রাসার একাংশকে  জেনারেল স্কুলে বদলে ফেলার নির্দেশ অসমে

চেয়ারে বসেই বিগত সরকারের দেখানো পথেই হাঁটা শুরু করলেন অসমের মুখ্য়মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। বিগত সরকার যে মাদ্রাসাগুলিতে কার্যত বিলুপ্ত করেছিলেন সেগুলিকে এবার নিয়মিত স্কুলে বদলে ফেলার নির্দেশ দিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। শিক্ষাদফতরের রিভিউ মিটিংয়ে এব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়ালের আমলেও সরকার পরিচালিত মাদ্রাগুলিকে  স্কুলে পরিণত করার পরিকল্পনা রচনার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছিলেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা।বর্তমানে মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেই সেই কাজকেই আরও একধাপ এগিয়ে দিলেন তিনি।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অসমের রাজ্য বিধানসভায় পাশ হওয়া এই সংক্রান্ত বিলে সম্মতি জানিয়েছিলেন অসমের রাজ্যপাল। শিক্ষাদফতর সূত্রে খবর, ৫৪২টি প্রি সিনিয়র, সিনিয়র, টাইটেল মাদ্রাসা, আরবিক কলেজ যেগুলি রাজ্য মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরের আওতায় ছিল সেগুলিকেই ডিসলভ করা হয়েছে। তবে এই নতুন উদ্যোগ বেসরকারি মাদ্রাসার উপর প্রযুক্ত হবে না। মূলত সরকারি সহায়তা পায় না এমন মাদ্রাসার ক্ষেত্রে এই নতুন নিয়ম প্রযুক্ত হবে না। শিক্ষা দফতরের দাবি, সকলেই যাতে সমানভাবে শিক্ষালাভ করে সেকারণেই এই বিশেষ পদক্ষেপকে কার্যকরী করা হচ্ছে। শিক্ষার উন্নতিতে সর্বাগ্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি অসম সরকারের। দ্রুত এব্যাপারে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

 

চেয়ারে বসেই বিগত সরকারের দেখানো পথেই হাঁটা শুরু করলেন অসমের মুখ্য়মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। বিগত সরকার যে মাদ্রাসাগুলিতে কার্যত বিলুপ্ত করেছিলেন সেগুলিকে এবার নিয়মিত স্কুলে বদলে ফেলার নির্দেশ দিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। শিক্ষাদফতরের রিভিউ মিটিংয়ে এব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়ালের আমলেও সরকার পরিচালিত মাদ্রাগুলিকে  স্কুলে পরিণত করার পরিকল্পনা রচনার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছিলেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা।বর্তমানে মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেই সেই কাজকেই আরও একধাপ এগিয়ে দিলেন তিনি।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে অসমের রাজ্য বিধানসভায় পাশ হওয়া এই সংক্রান্ত বিলে সম্মতি জানিয়েছিলেন অসমের রাজ্যপাল। শিক্ষাদফতর সূত্রে খবর, ৫৪২টি প্রি সিনিয়র, সিনিয়র, টাইটেল মাদ্রাসা, আরবিক কলেজ যেগুলি রাজ্য মাদ্রাসা শিক্ষা দফতরের আওতায় ছিল সেগুলিকেই ডিসলভ করা হয়েছে। তবে এই নতুন উদ্যোগ বেসরকারি মাদ্রাসার উপর প্রযুক্ত হবে না। মূলত সরকারি সহায়তা পায় না এমন মাদ্রাসার ক্ষেত্রে এই নতুন নিয়ম প্রযুক্ত হবে না। শিক্ষা দফতরের দাবি, সকলেই যাতে সমানভাবে শিক্ষালাভ করে সেকারণেই এই বিশেষ পদক্ষেপকে কার্যকরী করা হচ্ছে। শিক্ষার উন্নতিতে সর্বাগ্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি অসম সরকারের। দ্রুত এব্যাপারে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

 

|#+|

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন