বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Assam Flood: বিপর্যস্ত অসম, বাতিল ট্রেন, বিমানের ভাড়াও বেশি, জিনিসের আগুন দাম
প্রবল বর্ষণে অসমে রাস্তা ভেঙে গিয়েছে।  (নিজস্ব চিত্র)

Assam Flood: বিপর্যস্ত অসম, বাতিল ট্রেন, বিমানের ভাড়াও বেশি, জিনিসের আগুন দাম

প্রবল বর্ষণে অসমের বিস্তীর্ণ অংশ বিপন্ন। অন্তত তিনজনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। এদিকে সুযোগ বুঝে জিনিসপত্রের দামও বাড়ছে। কড়া ব্যবস্থার আশ্বাস প্রশাসনের।

বিশ্বকল্যাণ পুরকায়স্থ

টানা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত অসমের বিস্তীর্ণ এলাকা। অসমের দক্ষিণ প্রান্তের ডিমা হাসাও, কাছাড়, করিমগঞ্জ, হাইলাকান্দির লক্ষাধিক মানুষ বন্য়া পরিস্থিতি ও ধসের কবলে পড়েছেন। নদীর জল ক্রমেই বাড়ছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন এলাকা। বেসরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যা ৫জন। সরকারি হিসাবে অবশ্য মারা গিয়েছেন তিনজন।

এদিকে বরাক উপত্যকায় প্রায় ৫০ লক্ষ মানুষের বাস। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে অনেকে এখানে বাস করেন। বন্যা পরিস্থিতির জেরে অনেকেই আটকে পড়েছেন। অনেকে ভেবেছিলেন আকাশপথে নিরাপদ জায়গায় চলে যাবেন। কিন্তু বিমানের অতিরিক্ত ভাড়ার জেরে ভরসা পাচ্ছেন না তাঁরা। ডিমা হাসাওতে ধসের জেরে রেল পরিষেবাও বিপর্যস্ত। অন্তত ১৮টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। অনেকে পরীক্ষা দিতেও যেতে পারেননি।

এদিকে শুক্র ও শনিবার অসমের কাছাড় জেলায় চারজন জলে তলিয়ে যান। সোমবার একটি শিশু নৌকা থেকে তলিয়ে যায়।

এদিকে সড়কপথে মেঘালয় হয়ে বরাক উপত্যকা সহ ত্রিপুরা, মিজোরাম ও মণিপুর দেশের অন্য়ান্য এলাকার সঙ্গে যুক্ত। কিন্তু সড়ক ও রেলপথ বিপর্যস্ত হওয়ায় গোটা এলাকা কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে।  এর সঙ্গেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দামও ক্রমে বাড়ছে। কাছাড়ের জেলাশাসক কীর্তি জাল্লি সাফ জানিয়েছেন, জেলায় পর্যাপ্ত খাদ্য মজুত রয়েছে। আগামী তিন মাস প্রত্যেক জনগণকে খাদ্য সরবরাহ করা হবে। অযথা মূল্যবৃদ্ধির কারণ নেই। অযথা দামবৃদ্ধির প্রমাণ পেলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মৃতদের পরিবার চার লক্ষ টাকা সরকারি অনুদান পাবে। দাম বৃদ্ধি নিয়ে কড়া বার্তা দিয়েছেন সাংসদ রাজদীপ রায়ও।

তিনি  টুইট করে লিখেছেন, শিলচর থেকে গুয়াহাটি বিমানে যেতে লাগে আধ ঘণ্টা। অথচ বেসরকারি বিমান সংস্থা ৩১-৩৬ হাজার টাকা টিকিটের দাম চাইছে। আমরা এনিয়ে কেন্দ্রকে জানাব। এদিকে এনিয়ে কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া জানিয়েছেন, গুয়াহাটি ও শিলচরের মধ্যে যে বিমান পরিষেবা রয়েছে তা কেন্দ্রের ক্যাপের আওতায় রয়েছে। যাঁরা অতিরিক্ত ভাড়া দিতে বাধ্য হয়েছেন, তাদের বিষয়গুলো তুলে ধরলে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এদিকে কাছাড়ে পেট্রল যথেষ্ট মজুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলাশাসক। তবে করিমগঞ্জের জেলাশাসক জানিয়েছেন, আমাদের মজুত ৬-৭ দিন চলবে। কাছাড়ের সঙ্গে এনিয়ে কথা বলা হবে। ফ্লাড সেলের পক্ষে দেবব্রত রায় জানিয়েছেন, বরাকের জল মঙ্গলবার রাতে স্থিতাবস্থায় থাকলেও পূর্বাভাস বলছে বুধবার সকালে সেটা ২১.১২ মিটার হতে পারে।

 

বন্ধ করুন