বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > এখনও থমথমে দুই রাজ্যের সীমান্ত, রাজ্যবাসীকে মিজোরামে না যাওয়ার পরামর্শ অসমের
অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)
অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

এখনও থমথমে দুই রাজ্যের সীমান্ত, রাজ্যবাসীকে মিজোরামে না যাওয়ার পরামর্শ অসমের

  • অসম-মিজোরাম সীমানায় সংঘর্ষের ঘটনার পর এখনও সেখানকার পরিস্থিতি থমথমে।

অসম-মিজোরাম সীমানায় সংঘর্ষের ঘটনার পর পরিস্থিতি এখনও থমথমে। এই আবহে রাজ্যবাসীকে মিজোরামে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলল অসম সরকার। কর্মসূত্রে একান্তই যাঁদের মিজোরামে যেতে হবে, সেই সব অসমবাসীকে খুবই সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। সরকারের তরফে জানানো হয়েছে যে রাজ্যের কোনও বাসিন্দার উপর কোনও আংচ পড়লে তা বরদাস্ত করা হবে না।

উল্লেখ্য, সোমবার অসম ও মিজোরাম সীমানায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সোমবারের ওই ঘটনায় অসমের পাঁচজন পুলিশ কর্মী ও একজন নাগরিকের মৃত্যু হয়। সেই ঘটনায় তিনদিনের রাষ্ট্রীয় শোকের ঘোষণা করে অসম সরকার। পাশাপাশি ৬০ জন জখম হয়েছেন। এদিকে এই ঘটনার পর কাছার জেলার বাসিন্দারা মিজোরামের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। ইতিমধ্যে মিজোরাম যাওয়ার বেশ কয়েকটি রাস্তায় অবরোধও হয়েছে।

এদিকে সোমবারের ঘটনার পর রাজ্যের বনাঞ্চল রক্ষা করার জন্য সুপ্রিম কোর্ট মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অসম সরকার। মঙ্গলবার এই কথা জানিয়েছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। একই সঙ্গে তিনি জানান যে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অসমের কাছাড়, হাইলাকান্দি ও করিমগঞ্জে তিন ব্যাটালিয়ন কমান্ডো মোতয়েন করা হবে।

প্রসঙ্গত, অসমের হাইলাকান্দি ও কাছার জেলার সঙ্গে মিজোরামের এই গোলমাল গত বছরে অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে। মাঝে মধ্যেই দুই পক্ষের মধ্যে গোলমাল হয়। চলতি বছরের মে মাসে অসম-নাগাল্যান্ড সীমানায় এই ধরনের একটি ঘটনা ঘটেছিল। সেখানে গুলি চলার ঘটনা ঘটে। অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে। তবে সেই ঘটনায় কোনও হতাহতের খবর ছিল না। তারপর থেকে দুই রাজ্যের সরকার এই নিয়ে আলোচনাও করেছে। তবে সমাধানসূত্র মেলেনি।

বন্ধ করুন