বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অসম-মিজোরাম সীমান্তে সংঘর্ষের জের, হিমন্তের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা পুলিশের
অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (ছবি সৌজন্যে এএনআই)
অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (ছবি সৌজন্যে এএনআই)

অসম-মিজোরাম সীমান্তে সংঘর্ষের জের, হিমন্তের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা পুলিশের

  • অসম-মিজোরাম সংঘর্ষের জেরে এখনও দুই রাজ্যের সীমান্তে থমথমে পরিস্থিতি।

অসম-মিজোরাম সংঘর্ষের জেরে এখনও দুই রাজ্যের সীমান্তে থমথমে পরিস্থিতি। এরই মাঝে মামলা গড়িয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। আর এসবের মাঝেই এবার অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা রুজু করল মিজোরামের পুলিশ। পাশাপাশি মামলায় নাম রয়েছে অসম পুলিশের চার শীর্ষ কর্তা, দুই আমলা এবং ২০০ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তাঁদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারা, অস্ত্র আইন এবং মিজোরাম কনটেনমেন্ট অ্যান্ড প্রিভেনশন অব কোভিড-১৯ অ্যাক্ট ২০২০-তে মামলা রুজু করা হয়েছে।

এফআইআরে মিজোরাম পুলিশ অভিযোগ করেছে, অসম পুলিশের আইজিপি-র নেতৃত্বে ২০০ জনের সশস্ত্র দল জোর করে তাদের পুলিশ ক্যাম্প দখল করতে এসেছিল। এর থেকেই সংঘর্ষের তৈরি হয়। কোলাসিবের পুলিশ সুপার বোঝাপড়ার চেষ্টা চালালেও সমাধআন সূত্র পাওয়া যায়নি। উলটে অসম সেখানে পুলিশ ক্যাম্প তৈরির কথা বলতে থাকে। অসম পুলিশ নাকি জানায়, মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তের নির্দেশেই সেখানে ক্যাম্প তৈরি করতে যায় অসম পুলিশ।

এদিকে অসম-মিজোরাম সীমানা থেকে অবরোধ উঠে গিয়েছে। তবে সেখানে এখনও উত্তেজনা বজায় রয়েছে। সেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনী লাগাতার টহলদারি চালিয়ে যাচ্ছে। দুই রাজ্য়ের মধ্যে দিয়ে চলে যাওয়া ৩০৬ নম্বর জাতীয় সড়কে মোতায়েন করা হয়েছে সিআরপিএফ জওয়ানদের। তবে অবরোধ উঠলেও ট্রাক নিয়ে সীমানা পেরোনোর সাহস পাচ্ছেন না চালকরা।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরে মিজোরামগামী রাস্তা আটকে রেখেছিলেন বিক্ষোভকারীরা। অসমের বরাক উপত্যকার বিভিন্ন গোষ্ঠী পড়শি মিজ়োরামকে অবরুদ্ধ করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করে। তারপর থেকে বিক্ষোভকারীরাই মিজোরামগামী ট্রাক ও গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন। তবে নতুন করে অশান্তি না ছড়ালেও ভয় কাটছে না ট্রাকচালকদের। এখনও সীমানা পেরোনোর সাহস পাচ্ছেন না তাঁরা।

 

বন্ধ করুন