বাড়ি > ঘরে বাইরে > সাত ঘণ্টার অপারেশনে জোড়া লাগল পঞ্জাব পুলিশের ASI-এর কাটা হাত
আক্রমণস্থলে পুলিশ
আক্রমণস্থলে পুলিশ

সাত ঘণ্টার অপারেশনে জোড়া লাগল পঞ্জাব পুলিশের ASI-এর কাটা হাত

চন্ডিগড়ের PGIMER-এ হল এই কঠিন অপারেশন

সাড়ে সাত ঘণ্টার চেষ্টায়, পঞ্জাব পুলিশের ASI হরজিত সিংয়ের হাত জোড়া লাগালেন চন্ডিগড়ের PGIMER-এর ডাক্তাররা। লকডাউন মানা নিয়ে বচসার জেরে পাতিয়ালায় কয়েকজন আততায়ীর হাতে আক্রান্ত হন হরজিত। নিজেদের তলোয়ার দিয়ে পুলিশ কর্মীর হাত কুপিয়ে দেয় কয়েকজন নিহাং শিখ। এই ঘটনায় ১১ জন গ্রেফতার হয়েছে।

PGIMER-এর পক্ষ থেকে জানান হয়েছে যে এই কেসটির বিষয় আজ সকাল ৭.৪৫ নাগাদ তাদের অবহিত করান পঞ্জাব পুলিশের ডিজিপি দিনকার গুপ্ত। তারপরেই ট্রমা সেন্টারে এমার্জেন্সি টিম প্রস্তুতিতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। অপারেশন দায়িত্ব পড়ে প্লাস্টিক সার্জারি ডিপার্টমেন্টের প্রধান রমেশ শর্মার ওপর।

সকাল দশটার সময় এই অপারেশন চালু হয়। প্রায় সাড়ে সাত ঘণ্টা চলে এটি। অত্যন্ত কঠিন এই অপারেশন সফল হয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাতে রক্ত চলাচল করছে এবং ফের হরজিত হাত ব্যবহার করতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করছেন তারা।

পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং টুইটারে বলেন যে অপারেশন সফল হয়েছে। এর আগে অমরিন্দর ঘটনার কড়া নিন্দা করে দোষীদের যথাপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন।

রবিবার সকালে লকডাউন মানা নিয়ে বিবাদ। জানা গিয়েছে কয়েকজন নিহাং শিখের কাছে কার্ফু পাস দেখতে চেয়েছিলেন হরজিত। তখনই তাঁকে আক্রমণ করা হয়। নিহাং শিখ অর্থাত্ হাতে তরোয়াল নিয়ে ঘোরেন শিখ সম্প্রদায়ের যেসব মানুষ।

রবিবার সকাল ৬.১৫ নাগাদ এই হামলা হয়। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে স্থানীয় গ্রামের গুরুদ্বারা থেকে এক মহিলা সহ এগারোজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এদের মধ্যে পাঁচজন সরাসরি হামলায় যুক্ত। জানা গিয়েছে বাজারে ব্যারিকেড লাগানো ছিল। কার্ফু পাস ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছিল না। জনা পাঁচেক নিহাং গাড়ি করে ওই সব্জি মান্ডির পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। তাদের থামায় পুলিশ। কিন্তু গেট ও ব্যারিকেডে গাড়ি দিয়ে ধাক্কা মারে তারা। এরপর গাড়ি থেকে বেরিয়ে সেখানে ডিউটিরত পুলিশকর্মীদের ওপর আক্রমণ করে আততায়ীরা।

তরবারির আঘাতে হাত কেটে যায় এএসআই হরজিত সিংয়ের। আহত হন আরও দুই পুলিশকর্মী। তাকে তড়িঘড়ি স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় যেখান থেকে PGIMER-এ তাঁকে রেফার করা হয়। সেখানেই সফল অপারেশন হল তাঁর।

বন্ধ করুন