বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > গো সংরক্ষণ বিল আসছে অসমে, গো মাংস বিক্রিতে কড়াকড়ি, নিয়ম না মানলে জেল, জরিমানা
দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গরুকে ভগবানরূপে পুজো করার রীতি রয়েছে (ফাইল ছবি)
দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গরুকে ভগবানরূপে পুজো করার রীতি রয়েছে (ফাইল ছবি)

গো সংরক্ষণ বিল আসছে অসমে, গো মাংস বিক্রিতে কড়াকড়ি, নিয়ম না মানলে জেল, জরিমানা

  • এদিকে ইতিমধ্যে বিধানসভায় এনিয়ে বিরোধিতার ঝড় উঠেছে। বিরোধীদের একাংশ ও সংখ্যালঘু প্রতিনিধিদের দাবি, এই বিল প্রয়োগ করা হলে সাম্প্রদায়িক হানাহানি আরও বাড়বে, বৈধভাবে গো মাংসের ব্যবসার সঙ্গে যুক্তরা মারাত্মক সমস্যায় পড়বেন। 

গো সংরক্ষণ বিল আসছে অসমে। অসমের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশে গরু পাচারের ক্ষেত্রে কড়া বিধি আরোপ করার রাস্তায় যাওয়ার উদ্যোগ। তবে গরুর মাংস কাটা কোনওভাবেই আইন করে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে না। পাশাপাশি অসমের বাইরে থেকে অসমের মধ্যে যাতে গরু না আসে সেটাও আইন করে বন্ধ করার ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কেবলমাত্র কৃষিক্ষেত্র ও পশুপালনের জন্য় গরু নিয়ে আসার ছাড়পত্র সবদিক খতিয়ে দিতে পারে। তবে Prevention of cruelty to animals Act 1960কে মান্যতা দিয়েই যাবতীয় কাজ করার কথাও আইনে থাকছে।

 

তবে এই বিলে কিছু ছাড়ও রয়েছে। জেলার মধ্যে গরু চরানোর জন্য নিয়ে যাওয়া, গো পালনের জন্য নিয়ে যাওয়া অথবা কৃষি জমিতে ব্যবহার করার জন্য় নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কোনও অনুমতি লাগবে না। জেলার মধ্যে নির্দিষ্ট বাজারে গরু কেনাবেচার জন্যও কোনও অনুমতি লাগবে না। 

প্রসঙ্গত উত্তরপূর্ব ভারতের মূল প্রবেশদ্বার হল অসম। গরু ছাড়াও অন্যান্য নানাধরণের সামগ্রী দেশের অন্য়ান্য প্রান্ত থেকে অসমে আসে। এদিকে এই বিলের মাধ্যমে খ্রীষ্টান প্রভাবিত এলাকাতে গো মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রে বড় প্রভাব পড়বে। পাশাপাশি বিলে উল্লেখ করা হচ্ছে, যে সমস্ত এলাকায় হিন্দু, শিখ, জৈন ধর্মাবলম্বী বাসিন্দারা বাস করেন ও কোনও মন্দির অথবা সত্র অথবা কোনও ধর্মীক্ষেত্রের ৫ কিলোমিটারের মধ্যে গো মাংস বিক্রির অনুমতি দেওয়া যাবে না। এই নিয়ম না মানলে ৩ থেকে ৮ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। ৩ থেকে ৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানাও হতে পারে। অল অসম মাইনরিটি স্টুডেন্টস অ্য়াসোসিয়েশনের দাবি, গোমাংসের জন্য এত কড়াকড়ি হলে কেউ কেউ তো বলবে মসজিদের কাছে শুয়োরের মাংস বিক্রিতেও নিষেধ করা দরকার।

 

বন্ধ করুন