অভিযুক্ত বিএনপি নেতা কামরুল ইসলাম
অভিযুক্ত বিএনপি নেতা কামরুল ইসলাম

বাংলাদেশে হিন্দুদের ত্রাণ বণ্টনে বাধা দানের অভিযোগ বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে

  • অভিযোগ, তখন কামরুল ইসলাম বলেন, ‘হিন্দুরা কেউ এখানে আসবেন না। হিন্দুদের নাম লিস্টে নেই।’

বাংলাদেশের সিলেট জেলায় হিন্দুদের করোনা ত্রাণ বণ্টনে বঞ্চনার অভিযোগ উঠেছে সেদেশের বিরোধী দল বিএনপির এক নেতার বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ১ এপ্রিল সিলেটের ওসমানিনগরে ত্রাণ বণ্টনের সময় হিন্দুদের সেখান থেকে চলে যেতে বলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়তে সমালোচনার ঝড় ওঠে। রবিবার সেই বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন বিএনপির সেই নেতা।

গত ১ এপ্রিল বুধবার ওসমানিনগরের দক্ষিণ ইলাসপুর এলাকায় নমাজের পর ত্রাণ বিলি করছিল ইলাসপুর ইসলামি যুব সংঘ নামে একটি ক্লাব। সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির পরিচালক তথা বিএনপি নেতা কামরুল ইসলাম। ত্রাণ বিলির খবর পেয়ে সেখানে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে জড়ো হয় দিনমজুর পরিবারগুলি। অভিযোগ, তখন কামরুল ইসলাম বলেন, ‘হিন্দুরা কেউ এখানে আসবেন না। হিন্দুদের নাম লিস্টে নেই।’

ত্রাণ বণ্টন কর্মসূচি ফেসবুকে লাইভ সম্প্রচার করছিলেন এক ব্যক্তি। ভিডিয়োটি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে নিন্দায় মুখর হন বহু মানুষ। সেদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুরা বিএনপি নেতার এই আচরণে ব্যথিত বলে দাবি করেন অনেকে।


লাগাতার সমালোচনার মুখে রবিবার নিজের বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন কামরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘হিন্দু – মুসলমান সমাজে পাশাপাশি বসবাস করে আসছি। আমাদের মধ্যে কোনও বিভেদ নেই। ত্রাণ বণ্টনের তালিকায় হিন্দু – মুসলমান সবার নাম রয়েছে। ভিড় এড়াতে হিন্দু ভাইদের তখন বাড়ি চলে যেতে বলেছিলাম। তাদের বাড়ি গিয়ে বা অন্যত্র ত্রাণ দেওয়া হবে। আমি ভুল ভাবে কথাটি বলেছি। যার জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।’



বন্ধ করুন