বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কাউকে তুষ্ট করার জন্য নয়…মোদী চেয়ারে বসার পরে দেশে বড় বদল হয়েছে: অমিত শাহ

কাউকে তুষ্ট করার জন্য নয়…মোদী চেয়ারে বসার পরে দেশে বড় বদল হয়েছে: অমিত শাহ

অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ফাইল ছবি: পিটিআই (PTI)

একাধিক সরকারি পদক্ষেপের কথা অমিত শাহ উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, যখন আমরা জিএসটি আনলাম তখন আমাদের বিরোধীরা নিরপেক্ষ থাকলেন। যখন আমরা ডাইরেক্ট বেনিফিট ট্রান্সফার আনলাম তখন বিরাট বিরোধিতা শুরু হয়ে গেল।

কেন্দ্রের আগের সরকারকে নিশানা করে তির ছুঁড়লেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর মতে আগের সরকার শুধুমাত্র ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করতেন। কিন্তু নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্ব যে সরকার তার নীতি কাউকে সন্তুষ্ট করার জন্য নয়, বরং মানুষের কল্যাণের জন্য সরকারের এই নীতি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, কিছুক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকারে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেটা কিছুটা কঠিন ছিল। কিন্তু মানুষের কল্যাণের জন্যই এগুলি নেওয়া হয়েছিল।

অমিত শাহ জানিয়েছেন, নরেন্দ্র মোদী দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে দেশে একটি বড় পরিবর্তন এসেছে। আগে ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করা হত। তবে বর্তমানে নরেন্দ্র মোদীর সরকার কখনও কাউকে তুষ্ট করার জন্য পলিসি তৈরি করে না। বরং মানুষের ভালোর জন্য করা হয়।

এনিয়ে একাধিক সরকারি পদক্ষেপের কথা তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, যখন আমরা জিএসটি আনলাম তখন আমাদের বিরোধীরা নিরপেক্ষ থাকলেন। যখন আমরা ডাইরেক্ট বেনিফিট ট্রান্সফার আনলাম তখন বিরাট বিরোধিতা শুরু হয়ে গেল। আসলে এটা ঠিক যে মিডলম্যানদের এটা পছন্দ হবে না। সেরকমভাবে যত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, হয়তো সেগুলি কঠিন সিদ্ধান্ত, কিন্তু সেগুলি মানুষের ভালোর জন্য হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা কখনও পলিসি তৈরির জন্য় ভোট ব্যাঙ্ক দেখিনি। আমরা সমস্যার সমাধানটা দেখেছি। এর সঙ্গেই তিনি উল্লেখ করেন সরকার চালানোর জন্য রুল বেসড লার্নিং নয় রোল বেসড লার্নিংয়ের সূচনা করেছি।

তিনি বলেন, মোদী সরকার সমস্যাগুলিকে কখনও বিচ্ছিন্নভাবে দেখে না। বেসিক যে সমস্য়া রয়েছে তার পূর্ণ সমাধানের জন্য় আগে পলিসি তৈরি করা হত না। মোদী সরকার পলিসির মাত্রারও বদল করে ফেলেছে।

অমিত শাহ বলেন, প্রতি স্তরেই চ্যালেঞ্জ রয়েছে। একদিকে যেমন পাখির চোখ থেকে গোটা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছেন আধিকারিকরা। তেমনি বিভিন্ন স্তর থেকে যে প্রস্তাব পাওয়া যাচ্ছে সেটাও দেখা হচ্ছে। সেই এলাকায় সুশাসনের মন্ত্র তৈরি করা হচ্ছে।

এর সঙ্গে সংবাদমাধ্যমের সামনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছে, কারোর ব্যক্তিগত আদর্শবোধকে দূরে রেখে সরকারের ভালো কাজের প্রশংসা করা দরকার।

তিনি বলেন, কোনও সাংবাদিক যদি খোলা মনে কোনও বিষয়কে গ্রহণ না করেন তবে তিনি সাংবাদিক থাকেন না তিনি অ্যাক্টিভিস্ট হয়ে যান। দুটি কাজ তো আলাদা। তাদের নিজেদের দিক থেকে দুটি কাজই ভালো। কিন্ত যদি উভয়ে একে অপরের কাজ শুরু করে দেন তখনই সমস্যাটা দেখা দেয়। বহু ক্ষেত্রে এটা দেখা যাচ্ছে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

বন্ধ করুন