বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > প্রসবের সময় টানাহেঁচড়া! শিশুর মাথা ছিঁড়ে রয়ে গেল মায়ের পেটে, বাকি শরীর বাইরে
সন্তান প্রসব করাতে গিয়ে বড় বিপত্তি পাকিস্তানে। প্রতীকী ছবি (MINT_PRINT)

প্রসবের সময় টানাহেঁচড়া! শিশুর মাথা ছিঁড়ে রয়ে গেল মায়ের পেটে, বাকি শরীর বাইরে

  • ওই মহিলার শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হতে থাকে। তাঁকে স্থানীয় অপর একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানেও তাঁর চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা ছিল না। সেখান থেকে পাকিস্তানের জামশুরুর লিয়াকত ইউনির্ভাসিটি অব মেডিক্যাল অ্যান্ড হেলথ সায়েন্সে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। 

শিউরে ওঠার মতোই ঘটনা। অপটু হাতে সন্তান প্রসব করাতে গিয়ে যে কী ভয়াবহ পরিস্থিতি হতে পারে তা এই ঘটনাতে একেবারে সামনে এসেছে। পাকিস্তানের থারপারকার জেলার গ্রামীণ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ঘটনা। সূত্রের খবর এক প্রসূতি প্রসব বেদনায় কাতর হয়ে পড়েছিলেন। এরপর তাঁকে স্থানীয় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেই সময় সেখানে কোনও স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ ছিলেন না। এদিকে ব্যাথায় ছটফট করছেন ওই মহিলা।

কার্যত কিছুটা বাধ্য হয়েই এক স্বাস্থ্যকর্মী মহিলার প্রসব করানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি এব্যাপারে একেবারেই অভিজ্ঞ নন। সন্তান প্রসব করানোর নামে কার্যত টানা হেঁচড়া শুরু হয়ে যায়। এরপরই মহিলার পেটের মধ্যেই শিশুর মাথা থেকে যায়। শরীরের বাকি অংশটি ছিঁড়ে ওই স্বাস্থ্যকর্মীর হাতে চলে আসে। আর কোনও ঝুঁকি নেননি ওই স্বাস্থ্যকর্মী। 

ওই মহিলার শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হতে থাকে। তাঁকে স্থানীয় অপর একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানেও তাঁর চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা ছিল না। সেখান থেকে পাকিস্তানের জামশুরুর লিয়াকত ইউনির্ভাসিটি অব মেডিক্যাল অ্যান্ড হেলথ সায়েন্সে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। সেখানে ওই নবজাতকের মাথার অংশটি অপারেশন করে বের করা হয়। আপাতত ৩২ বছর বয়সী ওই মহিলার শারীরিক অবস্থা সংকটজনক। ইতিমধ্যেই পাকিস্তানের সিন্ধ সরকার ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। এলইউএমএইচএসের স্ত্রীরোগ বিভাগের অধ্যাপক রাহিল সিকন্দর জানিয়েছেন,একজন অনভিজ্ঞ স্বাস্থ্য কর্মী সন্তান প্রসব করানোর চেষ্টা করেছিলেন। তারই পরিণতিতে এই ঘটনা।

 

বন্ধ করুন