বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Bihar assembly election 2020: বিহারে সবথেকে বেশি আসন BJP-র, নীতিশে ‘রাগ’ ৮৪% মানুষের : সমীক্ষা
গত শুক্রবার সাসারামে প্রচার নরেন্দ্র মোদী এবং নীতিশ কুমারের (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
গত শুক্রবার সাসারামে প্রচার নরেন্দ্র মোদী এবং নীতিশ কুমারের (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

Bihar assembly election 2020: বিহারে সবথেকে বেশি আসন BJP-র, নীতিশে ‘রাগ’ ৮৪% মানুষের : সমীক্ষা

  • সমীক্ষায় বিহারবাসীর ‘রাগ’ দেখে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে দু'বার ভাবতে বাধ্য হবে বিজেপি।

নির্বাচনের দিনকয়েক আগে সমীক্ষার ফলাফলে আরও স্বস্তি বাড়ল বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের। এবিপি-সিভোটারের সমীক্ষা অনুযায়ী, তিন দফার নির্বাচন শেষে বিহারে ক্ষমতায় আসতে চলেছে বিজেপি ও জেডিইউ জোট। আর এককভাবে সবথেকে বেশি আসন পেতে পারে বিজেপি। তবে সেই উদ্বেগের মধ্যে অস্বস্তি বাড়িয়েছে নীতিশ কুমারের উপর বিহারবাসীর ‘রাগ’।

আগামী বুধবার (২৮ অক্টোবর) থেকে বিহারে তিন দফার বিধানসভা নির্বাচন শুরু হবে। তার আগে এবিপি-সিভোটারের সমীক্ষা অনুযায়ী, ২৪৩ সদস্যের বিধানসভায় ১৩৫-১৫৯ টি আসন পাবে এনডিএ। মহাজোট পেতে পারে ৭৭-৯৮ টি আসন। চিরাগ পাসোয়ানের নেতৃত্বাধীন লোক জনশক্তি পার্টি বড়জোর এক থেকে পাঁচটি আসন পেতে পারে। এনডিএ জোট পেতে পারে ৪৩ শতাংশ ভোট। খুব একটা পিছিয়ে থাকবে না মহাজোট। তাদের ভাগ্যে জুটতে পারে ৩৫ শতাংশ ভোট। চার শতাংশের বেশি ভোট টানতে পারবে না এলজেপি। বরং ১৮ শতাংশ ভোট নিয়ে অন্যান্যরা বড় ভূমিকা পালন করতে পারে।

প্রাক-ভোট সমীক্ষা অনুযায়ী, ৭৩-৮১ টি আসন পেয়ে এককভাবে সবথেকে বড় দল হতে পারে বিজেপি। নীতিশের জেডিইউয়ের ঝুলিতে যেতে পারে ৫৯-৬৭ টি আসন। বিকাশশীল ইনসান পার্টি (ভিআইপি) এবং হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চা (হ্যাম) যথাক্রমে তিন থেকে সাত এবং শূন্য থেকে চারটি আসনে জিততে পারে। অন্যদিকে মহাজোটের মধ্যে আরজেডি প্রার্থীরা ৫৬-৬৪ টি আসন জয়লাভ করতে পারেন। কংগ্রেসের জয়ের সম্ভাবনা আছে ১২-২০ টি আসনে। বামেদের দখলে যেতে পারে ন'টি থেকে ১৯ টি আসন।

ভোটের হার এবং আসন সংখ্যার ভিত্তিতে এনডিএ স্বস্তিতে থাকলেও নীতিশের জনপ্রিয়তা যেভাবে ধাক্কা খেয়েছে, তাতে জোটের অন্দরে চিন্তা বাড়বে। বিশেষত দুশ্চিন্তায় ঘুম উড়বে নীতিশের। যদিও বিজেপি জানিয়েছে, ভোটে জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী হবেন নীতিশ। কিন্তু এবিপি-সিভোটারের সমীক্ষায় বিহারবাসীর ‘রাগ’ দেখে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে দু'বার ভাবতে বাধ্য হবে বিজেপি। সমীক্ষা অনুযায়ী, নীতিশের উপর ৬০ শতাংশ মানুষ ‘ক্ষুব্ধ’ এবং তাঁরা নয়া মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষে সওয়াল করেছেন। ২৬ শতাংশ উত্তরদাতা অবশ্য জানিয়েছেন, নীতিশের কাজে তাঁরা ‘ক্ষুব্ধ’ হলেও তাঁকে আরও একবার সুযোগ দিতে চান। মাত্র ১৪ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন, নীতিশের প্রতি তাঁরা ‘ক্ষুব্ধ’ নন এবং তাঁকেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান। 

সমীক্ষা অনুযায়ী, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ৩০ শতাংশ উত্তরদাতার প্রথম পছন্দ নীতিশ। রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষে আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবকে দেখতে চান ২০ শতাংশ মানুষ। ১৪ এবং ১০ শতাংশ মানুষের প্রথম পছন্দের মুখ্যমন্ত্রী যথাক্রমে চিরাগ পাসোয়ান এবং সুশীল মোদী। যিনি আবার বর্তমানে নীতিশের ডেপুটি।

বন্ধ করুন