বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Bihar assembly elections 2020: ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর পালটা ‘ডবল যুবরাজ’, উত্তরপ্রদেশের মতো পরিণতির হুঁশিয়ারি মোদীর
বিহারে প্রচারে নরেন্দ্র মোদী (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
বিহারে প্রচারে নরেন্দ্র মোদী (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

Bihar assembly elections 2020: ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর পালটা ‘ডবল যুবরাজ’, উত্তরপ্রদেশের মতো পরিণতির হুঁশিয়ারি মোদীর

  • তেজস্বী প্রশ্ন করেন, 'ডবল ইঞ্জিন সরকারের আমলেও বিহারে বেকারত্ব ৪৬ শতাংশ কেন?’

বিহারের নির্বাচনী রাজনীতিতেও সক্রিয় ভূমিকায় দেখা গেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব বরাবর বিহারের জেডিইউ–বিজেপি জোট সরকারকে ‘ডবল ইঞ্জিন’ সরকার বলে কটাক্ষ করেছেন। তাই এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পালটা ‘ডবল যুবরাজ’-এর তত্ত্ব খাড়া করলেন। রবিবার সমস্তিপুর, মোতিহারিতে বিজেপির প্রচারসভায় যোগ দেন তিনি। তেজস্বী যাদবকে নিশানা করতে গিয়ে তিনি নাম না করে টেনে আনেন অখিলেশ যাদব ও রাহুল গান্ধীর প্রসঙ্গও।

রাহুল গান্ধী এবং তেজস্বী যাদবকে যৌথভাবে কটাক্ষ করে বলেন, ‘‌বিহারের ডবল ইঞ্জিন সরকার লড়াই করছে মানুষের জন্য। আর দুই যুবরাজ লড়াই করছে নিজেদের মুকুট বাঁচানোর জন্য।’‌ উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় বিজেপি‌র জয়ের কথা মনে করিয়ে দিয়ে মোদী বলেন, ‘‌উত্তরপ্রদেশে দুই যুবরাজের বিরুদ্ধে জয়ী হয়েছিল বিজেপি। আর এখন বিহারেও মসনদের জন্য লড়াই করছেন এক যুবরাজ।’‌ গত সপ্তাহে এক সভায় মোদী তেজস্বী যাদবকে জঙ্গলরাজের যুবরাজ বলে আখ্যা দেন।

উদাহরণ টেনে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘বছর তিন আগে উত্তরপ্রদেশও দুই যুবরাজ হাত মিলিয়েছিলেন। বাসের মাথা থেকে হাত নাড়াচ্ছিল একসঙ্গে। উত্তরপ্রদেশের মানুষ তাঁদের বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছেন। এবার বিহারেও দুই যুবরাজ (রাহুল গান্ধী এবং তেজস্বী যাদব) হাত মেলাচ্ছে। বিহারের মানুষও ওঁদের ধরাশায়ী করে দেবে। বর্তমানে বিহারের ডবল ইঞ্জিনের শাসন চলছে। আর অন্যদিকে, দুই যুবরাজ। তাঁদের একজন জঙ্গলরাজের যুবরাজ।’‌

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস এবং সমাজবাদী পার্টির জোট হয়েছিল। আর যৌথভাবে প্রচার করেছিলেন রাহুল গান্ধী–অখিলেশ যাদব। কিন্তু তাতেও ফল হয়নি। বড় আকারে জিতেছিল বিজেপি। এবার তেজস্বীর সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন রাহুল গান্ধী। তাই কটাক্ষ করলেন প্রধানমন্ত্রী। তবে নীতীশ সরকারকে নির্বাচনের আগে ও নির্বাচনের সময় এলজেপি‌র চিরাগ পাসওয়ান বারবার তুলোধনা করেছেন। কর্মসংস্থান নিয়ে সরব হয়েছেন তিনি।

বিহারের ছাপরার জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‌যুবরাজ এবার জঙ্গলরাজের যুবরাজের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। ডবল ইঞ্জিনের এনডিএ সরকার মানুষের উন্নয়নে বদ্ধপরিকর। আর ডবল যুবরাজ নিজেদের মুকুট বাঁচাতে বদ্ধপরিকর।’‌ তেজস্বী যাদব পালটা বেকারত্ব ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধেছেন। তেজস্বীর প্রশ্ন, ‘‌সম্মানীয় প্রধানমন্ত্রী একটু বলবেন কি ডবল ইঞ্জিন সরকারের আমলেও বিহারে বেকারত্ব ৪৬ শতাংশ কেন?’‌

বন্ধ করুন