বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বিজেপি বিধায়ককে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ বিক্ষোভকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে
ছবি : টুইটার (Twitter)
ছবি : টুইটার (Twitter)

বিজেপি বিধায়ককে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ বিক্ষোভকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে

বিধায়ককে ধরে টানা-হেঁচড়া শুরু হয়। টেনে পোশাক ছিঁড়ে দেওয়া হয় বিধায়কের। পুলিশকর্মীদের সঙ্গে শুরু হয় ধস্তাধস্তি। বিধায়ককে বেধড়ক মারধর শুরু হয়।

বিজেপি বিধায়কের পোশাক ছিঁড়ে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল একদল কৃষি আইন প্রতিবাদীদের বিরুদ্ধে। শনিবার পঞ্জাবের মুক্তসার জেলায় একটি সাংবাদিক সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়ার সময়ে আক্রান্ত হন ওই বিজেপি বিধায়ক।

আক্রান্ত বিজেপি বিধায়কের নাম অরুণ নারাং। পাঞ্জাবের অবোহরের বিধায়ক তিনি। শনিবার মলাউট-এ ৩টে ৪০ নাগাদ গিয়েছিলেন তিনি। তাঁর অভিযোগ, সেই সময়েই একাধিক কৃষি সংগঠনের কর্মীরা তাঁকে ঘিরে ধরেন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশকর্মীরা বিধায়ককে স্থানীয় একটি দোকানে ঢুকিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। ততক্ষণে তাঁকে ঘিরে ধরেছে প্রায় জনা শয়েক বিক্ষোভকারী।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী পুলিশকর্মীরা বিধায়ককে নিরাপদ স্থানে সরানোর চেষ্টা করতেই আরও বাড়ে উত্তেজনা। প্রথমেই বিধায়কের গায়ে বিক্ষোভকারীরা কালি ছিটিয়ে দেন।

এরপরেই বিধায়ককে ধরে টানা-হেঁচড়া শুরু হয়। টেনে পোশাক ছিঁড়ে দেওয়া হয় বিধায়কের। পুলিশকর্মীদের সঙ্গে শুরু হয় ধস্তাধস্তি। বিধায়ককে বেধড়ক মারধর শুরু হয়।

'বিক্ষোভকারীদের কাউকেই আমি চিনি না। ওরা হঠাত্ই বিনা প্ররোচনায় আমার উপর চড়াও হয়। আমার জামা-কাপড় ছিঁড়ে দেয়, মারধর শুরু করে। পুলিশকর্মীরা আমার প্রাণ বাঁচাতে একটি দোকানে কোনওমতে ঢুকিয়ে দেন। তখন পুলিশকর্মীদের সঙ্গেও ধাক্কাধাক্কি শুরু করে দেয় ওরা,' ঘটনার ব্যাখ্যা করেন ওই বিধায়ক। দলের উচ্চস্তরে বিষয়টি জানাবেন বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে পঞ্জাবের বিজেপির রাজ্য সভাপতি অশ্বানী শর্মা বলেন, 'রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি তলানিতে ঠেকেছে। একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিকে মারধরের ঘটনাই তার প্রমাণ।' এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংয়ের হস্তক্ষেপ দাবি করেন তিনি। 'হয় উনি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করুন, নয় তো তাঁর সরকার ইস্তফা দিক,' দাবি করেন অশ্বানী। রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসনের সওয়ালও করেন তিনি।

অন্যদিকে বিকেইউ একতা সিধুপুর, বিকেইউ লাখওয়াল, বিকেইউ কাদিয়ান এদিনের ঘটনার দায় এড়িয়ে গিয়েছে। কৃষক সংগঠনের মুখ্যসচিব হরিন্দর সিং লাখওয়াল বলেন, 'কোনও অশান্তি, হিংসামূলক কাজ কখনই আমাদের উদ্দেশ্য নয়। এ বিষয়ে আমরা খতিয়ে দেখব। কারা এই কাজ করেছেন অবশ্যই সেটা খুঁজে বের করা হবে।'

ভাতিন্দার আইজিপি যশকরণ সিং জানান, আক্রান্ত বিধায়ক অভিযোগ দায়ের করেছেন। তার ভিত্তিতে দ্রুত তদন্ত হবে। অভিযুক্তদের আইনানুগ বিচার হবে।

অন্যদিকে অরুণ নারাঙের উপর হামলার ঘটনার নিন্দা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। 'কেউ রাজ্যের শান্তি বিঘ্নিত করলে তাঁর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে,' স্পষ্ট জানিয়ে দেন তিনি।

বন্ধ করুন