বাড়ি > ঘরে বাইরে > চিন নিয়ে রাহুলের অভিযোগে যুক্তি কম ও কাদা ছোড়ার লক্ষ্যই বেশি, তোপ নড্ডার
প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতিকে নিশানা করে সোমবার তোপ দাগলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডা।
প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতিকে নিশানা করে সোমবার তোপ দাগলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডা।

চিন নিয়ে রাহুলের অভিযোগে যুক্তি কম ও কাদা ছোড়ার লক্ষ্যই বেশি, তোপ নড্ডার

  • দেশের প্রতিরক্ষা এবং বিদেশনীতি নিয়ে রাজনীতিকরণে ফের স্পষ্ট হল ১৯৬২ সালের পাপ ধুয়ে ফেলার বংশাণুক্রমিক প্রচেষ্টা, দাবি নড্ডার।

কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে রাহুল গান্ধীর অভিযোগে যুক্তি কম, কাদা ছোড়ার প্রবণতা বেশি। প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতিকে নিশানা করে সোমবার এ ভাবেই তোপ দাগলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডা।

এ দিন একাধিক টুইটে রাহুলের বিরুদ্ধে লাগাতার আক্রমণ শানিয়েছেন নড্ডা। টুইটারে বিজেপি সভাপতি লিখেছেন, ‘আজ আমরা আবার প্রোজেক্ট আর জি রিলঞ্চ-এর এক (ব্যর্থ) সংস্করণ দেখলাম। রাহুল গান্ধীজি যথারীতি যুক্তিতে কাঁচা এবং কাদা ছোড়ায় দক্ষতা প্রমাণ করেছেন। দেশের প্রতিরক্ষা এবং বিদেশনীতি নিয়ে রাজনীতিকরণে ফের স্পষ্ট হল ১৯৬২ সালের পাপ ধুয়ে ফেলার বংশাণুক্রমিক প্রচেষ্টা।’

এর আগে ভিডিয়ো বার্তায় রাহুল অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাবমূর্তিকে আক্রমণ করছে চিন, কারণ তারা বুঝেছে যে রাজনীতিতে টিকে থাকতে নিজের ভাবমূর্তির উপরেই ভরসা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। এর পরেই তিনি অভিযোগ করেন যে, যদি নিজের ভাবমূর্তি বজায় রাখার স্বার্থে নিজেকে চিনের হাতে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন, তা হলে ভারতের কাছে তিনি মূল্যহীন হয়ে পড়বেন। 

রাহুলকে এ দিন টুইটারে নড্ডা জবাব দিয়েছেন, ‘সেই ডোকলাম থেকেই গত কয়েক বছরে রাহুল গান্ধীজি ভারতীয় বাহিনীর বদলে চিনের কথার উপরে বেশি ভরসা করছেন। কী কারণে একটি বংশ দুর্বল ভারত ও শক্তিশালী চিন চায়? কংগ্রেসের বহু নেতা এই বংশাণুক্রমিক চাটুকারিতার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন।’ 

নড্ডার অভিযোগ, আগে রাফায়েল চুক্তি নিয়েও ভুয়ো অভিযোগ তুলেছিলেন রাহুল। একই ভাবে চিন নিয়েও ভ্রান্তিবিলাস ছড়ানোর চেষ্টায় রয়েছেন কংগ্রেস নেতা। এই প্রসঙ্গে রাজীব গান্ধির চিনা দূতাবাস থেকে পাওয়া অনুদানের উল্লেখ করেন বিজেপি সভাপতি। 

ভারত-চিন সীমান্ত দ্বন্দ্ব নিয়ে বেশ কিছু দিন হল কংগ্রেস ও বিজেপিলপরস্পরের দিকে আঘাত হেনে চলেচে। একদিকে কংগ্রেস অভিযোগ করছে, লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় চিনা ফৌজের সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সংঘাতের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার স্বচ্ছতা বজায় রাখছে না। অন্য দিকে বিজেপির দাবি, জাতীয় নিরাপত্তা নিয়ে রাজনীতিকরণ করার চেষ্টায় ভারতীয় সেনার মনোবলে চিড় ধরানোর প্রচেষ্টায় নেমেছে কংগ্রেস। 

নড্ডার দাবি, ‘বেশ কয়েক বছর ধরে একটি পরিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। দুঃখজনক ভাবে প্রধানমন্ত্রী ১৩০ কোটি ভারতবাসীর মনের গভীরে স্থান পেয়েছেন। তিনি দেশবাসীর জন্যই বাঁচেন ও কাজ করেন। যাঁরা তাঁকে ধ্বংস করার চেষ্টা করবে, তাঁরা নিজেদের দলেরই সর্বনাশ ডেকে আনবে।’

বন্ধ করুন