বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘খেলা হবে’র ধাঁচে বিজেপিকে হটাতে অখিলেশের ডাক ‘খদেড়া হবে’
অখিলেশ যাদব (PTI)
অখিলেশ যাদব (PTI)

‘খেলা হবে’র ধাঁচে বিজেপিকে হটাতে অখিলেশের ডাক ‘খদেড়া হবে’

  • সমাজবাদী পার্টি প্রধান জানান, ‘‌আমাদের দলের লক্ষ্য হল গরীব খেটেখাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ানো।

‌মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদাঙ্ক অনুসরণ করলেন অখিলেশ যাদব। বাংলায় ‘‌খেলা হবে’‌ স্লোগান তুলে বিজেপিকে রুখে দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সমাজবাদী পার্টি নেতা অখিলেশ যাদব উত্তর প্রদেশ থেকে বিজেপিকে বিতাড়িত করার ডাক দিলেন। ‘‌খেলা হবে’‌ স্লোগানের ধাঁচেই অখিলেশ যাদব হুঙ্কার ছাড়লেন, ‘‌খদেড়া হবে।’‌ অর্থাৎ বিতাড়িত করা হবে।

এদিন মউতে সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টির প্রধান ওম প্রকাশ রাজভরের সঙ্গে যৌথভাবে সভা করেন সমাজবাদী পার্টি প্রধান অখিলেশ যাদব। সভার বক্তব্য রাখতে উঠে তৃণমূল কংগ্রেসের দেওয়া স্লোগানের প্রসঙ্গ তোলেন অখিলেশ। তখনই তিনি যোগী সরকারকে নিশানা করেই জানান, আগামী বিধানসভা ভোটে উত্তর প্রদেশ থেকে বিজেপিকে আমরা বিতাড়িত করব। একইসঙ্গে তিনি জানান, ‘‌আগামীদিনে আমাদের এই দল যখন নির্বাচনী ময়দানে লড়তে এগিয়ে যাবে, তখন অন্য কোনও শক্তি আমাদের প্রতিহত করতে পারবে না। যদি সমাজবাদী পার্টি ও সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি একসঙ্গে নির্বাচনে লড়ে, তাহলে উত্তর প্রদেশে ৪০০ আসন জেতা আমাদের পক্ষে সহজ হয়ে যাবে।’‌

একইসঙ্গে সমাজবাদী পার্টি প্রধান জানান, ‘‌আমাদের দলের লক্ষ্য হল গরীব খেটেখাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ানো। তবে যেভাবে পেট্রোল, ডিজেলের দাম বাড়ছে, এর ফলে সাধারণ মানুষের জীবন আরো দুর্বিসহ হয়ে উঠছে। এই কথা ভুললে চলবে না।’‌ যোগী সরকারের তুলোধোনা করে অখিলেশ জানান, উত্তর প্রদেশে উন্নয়নের লেশমাত্র কিছু হয়নি। উত্তর প্রদেশে দারিদ্রতা বাড়ছে। গরিব মানুষ আত্মহত্যা করছে। সরকার সব বেচে দিচ্ছে। বিজেপি সরকার সাধারণ মানুষের জন্য কিছুই করেনি। এমনকি করোনা চিকিৎসার ক্ষেত্রে হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেনের সরবরাগ ঠিকমতো করতে পারেনি। একইসঙ্গে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যে সব শ্রমিকরা সমস্যার মুখে পড়েছিলেন, তাঁদের সাহায্যের জন্যও এগিয়ে আসেনি সরকার।

এদিন বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেওয়ার অভিযোগ করেন অখিলেশ। তিনি জানান, বিজেপি সরকার কৃষকদের আয় দ্বিগুন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্ত আমি প্রশ্ন করতে চাই, কোন খাদ্যশস্যের দাম দ্বিগুন করা হয়েছে। কৃষকরা কি ধানের দাম দ্বিগুন পাচ্ছে। যখনই কৃষকরা তাঁদের অধিকারের কথা বলতে গিয়েছে, তখনই তাঁদের পিষে মেরে ফেলা হয়েছে।’‌

 

বন্ধ করুন