বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > দিদির থেকে 'অনুপ্রাণিত' BJP! ভোটমুখী পাঁচ রাজ্যে প্রয়োগ পিকের 'দাওয়াই'
প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে পিটিআই (PTI)
প্রতীকী ছবি, সৌজন্যে পিটিআই (PTI)

দিদির থেকে 'অনুপ্রাণিত' BJP! ভোটমুখী পাঁচ রাজ্যে প্রয়োগ পিকের 'দাওয়াই'

  • ব্র্যান্ড মোদীর উপর ভরসা রেখেই ২০২২ সালের পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের প্রচারে আগেভাগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের ময়দানে নামাচ্ছে বিজেপি।

তৃণমূলের 'দিদিতে বলো' থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এবার ‘কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে বলো’ কর্মসূচি চালু করতে চলেছে বিজেপি। ২০২২ সালে অনুষ্ঠিত হতে চলা পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সেই সব রাজ্যগুলিতে জনসংযোগ বাড়াতেই এই পদক্ষেপ গেরুয়া শিবিরের। এর আগে ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে তৃণমূল চালু করেছিল 'দিদিকে বলো'। স্থানীয় স্তরে দুর্নীতি বা পরিষেবা সংক্রান্ত যআবতীয় অভিযোগ শোনার জন্য এই প্রকল্প চালু করেছিল ঘাসফুল শিবির।

২০২২ সালে বিজেপির নির্বাচনী ফর্ম খুব গুরুত্বপূর্ণ। পঞ্জাব বাদে যেসকল রাজ্যে আগামী বছর ভোট রয়েছে, সেখানে ক্ষমতা রয়েছে গেরুয়া শিবির। তাই ক্ষমতা ধরে রাখতে তারা মরিয়া। এই পরিস্থিতিতে ভোটারদের মন জয় করতে তাদের কাছে পৌঁছে যাওয়ার বার্তা দিতে চাইছেন খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। ব্র্যান্ড মোদীর উপর ভরসা রেখেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের ময়দানে নামাচ্ছে বিজেপি। দলের সমন্বয় শাখার তরফে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এই কর্মসূচির অধীনে বিজেপি সদর দফতরে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য, কেন্দ্রীয় ক্রীড়া ও তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী কিরেণ রিজিজু ও রেলমন্ত্রী ও ইলেকট্রনিকস ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবরা। দুইদিন অন্তর অন্তর দুই ঘণ্টা করে তাঁরা সাধারণ মানুষের অভিযোগ শুনবেন। পরে কোনও ব্যক্তির করা অভিযোগের সমাধান হল কি না তা দেখবে সমন্বয় শাখা।

যদিও এই কর্মসূচিকে 'দিদিকে বলো'র নকল হিসেবে মানতে নারাজ বিজেপি। তাদের দাবি ২০১৪ সালে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী থাকাকালীন বেঙ্কাইয়া নাইড়ু এই কর্মসূচির সূচনা করেছিলেন। তবে করোনার জেরে গত দুই বছর সেই কর্মসূচি পালন সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

বন্ধ করুন