বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > উত্তরাখণ্ডে মিলল ৭ ট্রেকারের দেহ, মাইনাস তাপমাত্রাতেও বেঁচে গেলেন কলকাতার মিঠুন
এক পর্বতারোহীকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে নিয়ে আসছেন SDRF সদস্যরা (ছবি : এএনআই) (HT_PRINT)
এক পর্বতারোহীকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে নিয়ে আসছেন SDRF সদস্যরা (ছবি : এএনআই) (HT_PRINT)

উত্তরাখণ্ডে মিলল ৭ ট্রেকারের দেহ, মাইনাস তাপমাত্রাতেও বেঁচে গেলেন কলকাতার মিঠুন

  • মৃত ট্রেকারদের মধ্যে অন্তত চারজন পশ্চিমবঙ্গবাসী। এখনও লামখাগা পাসে নিখোঁজ রয়েছেন বাংলার দুই পর্বতারোহী।

১৪ অক্টোবর হর্ষিল-চিতকুল লখমা পাসে ট্রেকিংয়ে গিয়ে নিঁখোজ হন পশ্চিমবঙ্গ নিবাসী ৭ পর্বতারোহী। তাঁদের দলে মোট ১১ জন ছিলেন। সেই দলের ৭ জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। দুই জনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এখনও নিখোঁজ দুই জন। জানা গিয়েছএ উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের একজন কলকাতার ট্রেকার মিঠুন দারি। অপর একজন হলেন সেই দলের সঙ্গে থাকা গাইড দেবেন্দ্র। দেহগুলি উদ্ধার হয়েছে লামখাগা পাসের কাছে। উত্তরাখণ্ডের হর্ষিল হয়ে হিমাচল প্রদেশের কিন্নুর জেলার সংযোগস্থাপনকারী এই অঞ্চলটি অত্যন্ত দুর্গম। উত্তরাখণ্ডের ডিজিপি অশোর কুমার ট্রেকারদের দেহ উদ্ধারের খবরটি প্রকাশ করেন।

বাংলার ৭ জন ছাড়াও দিল্লির ১ বাসিন্দা ছিলেন এই দলে। সঙ্গে উত্তরকাশীর আরও ৩ জন বাসিন্দা ছিলেন এই দলে। প্রবল তুষারপাতের জেরে ১১ জনের দলটি নিরুদ্দেশ হয়ে গিয়েছিল। এই দলে থাকা পর্বতারোহীদের নাম হল - শুভায়ন দাস (২৮), তন্ময় তিওয়ারি (৩০), রিচার্ড মণ্ডল (৩০), মিঠুন দারি (৩১), বিকাশ মাকাল (৩৩), সৌরভ ঘোষ (৩৪) এবং সুখেন মাঝি (৪৩)। তাছাড়া দিল্লিবাসী অনিতা রাওয়াতও (৩৮) এই দলে ছিলেন। 

পর্বতারোহীদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত শুধুমাত্র মিঠুনকেই জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। মাইনাস তাপমাত্রায় কোনও রকমে প্রায় ছয় দিন কাটিয়ে তিনি জীবিত অবস্থায় ফিরে এসেছেন। মৃত্যু হয়েছে সৌরভ ঘোষ, শুভায়ন দাস, বিকাশ মাকাল, তন্ময় তিওয়ারি ও অনিতা রাওয়াতের। এনিতা ছাড়া বাকি চার জনই পশ্চিমবঙ্গবাসী। দুই জনের দেহ এখনও চিহ্নিত করা যায়নি।

এই দলটির খোঁজে এবং তাঁদের উদ্ধারের জন্য একটি হেলিকপ্টার সহ এসডিআরএফ’র সদস্যরা বুধবার সকালেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিল। উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে বায়ুসেনাও। বায়ুসেনার হেলিকপ্টারে ইতিমধ্যে ৩ জনের শবদেহ হর্ষিলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন