বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কেন্দ্র অনুমতি না দিলে আমরা দেব, বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকা দেওয়া নিয়ে বলল হাইকোর্ট
বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকা দেওয়ার নির্দেশ বম্বে হাইকোর্টের (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স)
বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকা দেওয়ার নির্দেশ বম্বে হাইকোর্টের (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স)

কেন্দ্র অনুমতি না দিলে আমরা দেব, বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকা দেওয়া নিয়ে বলল হাইকোর্ট

  • কেন্দ্রের অনুমতির অপেক্ষায় না থেকে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকাকরণ শুরু করুন। বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন এবং মহারাষ্ট্র সরকারকে এমনই মন্তব্য করল বম্বে হাইকোর্ট।

কেন্দ্রের অনুমতির অপেক্ষায় না থেকে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে টিকাকরণ শুরু করতে পারেন। বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন এবং মহারাষ্ট্র সরকারকে এমনই কথা বলল বম্বে হাইকোর্ট। বৃদ্ধ এবং বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের যাতে তাদের বাড়িতে গিয়ে করোনা টিকা দেওয়া হয়, তার জন্যই এই কথা বলে বম্বে হাইকোর্ট। বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত এবং গিরিশ কুলরর্ণির ডিভিশন বেঞ্চ এই মন্তব্য করে।

এই বিষয়ে কেন্দ্রের পক্ষে এর আগে জানানো হয়েছিল যে বিশেষজ্ঞরা নাকি বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে টিকাকরণের পক্ষে মত দেয়নি। এর প্রেক্ষিতে বম্বে হাইকোর্ট বলেছে, আপনারা হয়ত আসল পরিস্থিতির সঙ্গে অবগত নন। অনেক ক্ষেত্রেই একজনকে স্ট্রেচারে করেও নিয়ে যাওয়া যায় না। এরপরই বিএমসি এবং মহারাষ্ট্র সরকারকে হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়, বাড়ি বাড়ি গিয়ে কীভাবে টিকাকরণ পরিচালনা করা যায়, তা একটি হলফনামার মাধ্যমে জানানো হোক আদালতকে।

এদিকে মহারাষ্ট্রের অভিযোগ, তাদের হাতে পর্যাপ্ত টিকা নেই। এদিকে টিকা বিলোচ্ছেন তারকা, রাজনীতিবিদরা। এই নিয়েও প্রশ্ন তোলে বম্বে হাইকোর্ট। তারকা এবং রাজনীতিবিদদের বিলিয়ে দেওয়া টিকা, ওষুধ এবং সরঞ্জামের তালিকা আদালতে পেশ করে মহারাষ্ট্র সরকার। এর প্রেক্ষিতে আদালতের স্পষ্ট বক্তব্য, 'ওষুধ বা টিকা মজুত করা বা কেনার ক্ষেত্রে কোনও করমের সামাজিক প্রভাব খাটানো অপরাধ। যাদের সত্যি টিকার প্রয়োজন, তারা হয়ত এসবের মাঝে টিকা পাচ্ছেন না।'

লাইসেন্স ছাড়া কীভাবে তারকা বা রাজনীতিবিদরা ওষুধ বিলি করছেন, তা নিয়ে মহারাষ্ট্র সরকারকে তোপ দেগেছে বম্বে হাইকোর্ট। তবে রাজ্যের হাতে ওষুধ বা টিকা না থাকলেও, তা তারকাদের হাতে কীভাবে যাচ্ছে, তা নিয়ে কোনও সদুত্তর নেই সরকারের কাছে। এই মর্মে মুম্বইয়ের কংগ্রেস সাংসদ জিশান সিদ্দিকি এবং অভইনেতা সোনু সুদকে নোটিশ পাঠিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। তবে এর কোনও জবাব পায়নি তারা।

বন্ধ করুন