বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জি৭ সম্মেলনে আমন্ত্রিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, তার পরেই ভারত সফরে বরিস জনসন
জি৭ সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাল ব্রিটেন।
জি৭ সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাল ব্রিটেন।

জি৭ সম্মেলনে আমন্ত্রিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, তার পরেই ভারত সফরে বরিস জনসন

  • প্রধান আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে থাকবে কোভিড অতিমারী দমন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা, মানুষকে মুক্ত বাণিজ্য, প্রযুক্তিগত পরিবর্তন ও বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের সুবিধা দান।

আগামী ১১ থেকে ১৩ জুন কর্নওয়ালে জি৭ সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাল ব্রিটেন। এই সম্মেলনেই আন্তর্জাতিক নেতৃত্বের সামনে কোভিড অতিমারী পরবর্তী নতুন বিশ্ব গঠনের আহ্বান জানাবেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

ভারত ছাড়াও দুই বছর যাবৎ এই সম্মেলনে অতিথি রাষ্ট্র হিসেবে আমন্ত্রিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়া। ব্রিটিশ হাই কমিশন প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বিশ্বের চিকিৎসালয় হিসেবে পরিচিত ভারত পৃথিবীর ৫০ শতাংশ ভ্যাক্সিন সরবরাহ করে। সমগ্র অতিমারী পর্বে ভারত ও ব্রিটেন ঘনিষ্ঠ ভাবে একসঙ্গে কাজ করেছে। আমাদের দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই কথাবার্তা হয় এবং জি৭ সম্মেলনের পরেই ভারত সফরে যাবেন বলে জানিয়েছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।’

সদস্য দেশগুলির প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীরা ব্রিটেনে জি৭ সম্মেলনে অংশগ্রহণ করতে চলেছেন, যেখানে তাঁদের প্রধান আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে থাকবে কোভিড অতিমারী দমন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা, মানুষকে মুক্ত বাণিজ্য, প্রযুক্তিগত পরিবর্তন ও বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের সুবিধা দান।

ব্রিটেন, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, আমেরিকা ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন-কে নিয়ে গঠিত জি৭ একমাত্র মঞ্চ যেখানে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাবান ও মুক্ত সমাজ এবং অর্থনৈতিক ভাবে এগিয়ে থাকা দেশগুলি পরস্পরের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ঘনিষ্ঠ আলোচনা ও মত বিনিময় করতে সক্ষম। দক্ষতা ও অভিজ্ঞতায় গভীরতা আনতে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়াকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

জি৭ সম্মেলনে বিশ্বের গণতান্ত্রিক ও প্রযুক্তিগত ভাবে এগিয়ে থাকা দেশগুলির মধ্যে সমন্বয় বৃদ্ধির পরিকল্পনা করেছেন জনসন। সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী ১০ দেশ বিশ্বের গণাতান্ত্রিক রাষ্ট্রগুলির ৬০% জনসংখ্যা ধারণ করে। 

এই সম্মেলন ছাড়াও বছরভর জি৭ রাষ্ট্রগুলির মন্ত্রী স্তরে একাধিক বৈঠকের আয়োজন করতে চলেছে ব্রিটেন। এই বৈঠকগুলি ব্রিটেনের বিভিন্ন প্রান্ত ছাড়া অনলাইনেও সম্পন্ন হবে। 

ব্রিটেনের নেতৃত্বের ক্ষেত্রে ২০২১ সাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জি৭ সম্মেলন ছাড়াও ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতিত্বের দায়িত্বও নিতে চলেছে বরিস জনসনের দেশ। আবার চলতি বছরের শেষ ভাগে গ্রাসগো শহরে বিশ্ব শিক্ষা সম্মেলন COP26 আয়োজন করতে চলেছে ব্রিটেন। 

এ বছর ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত হয়েছিলেন জনসন, কিন্তু ব্রিটেনে নতুন কোভিড প্রজাতির সংক্রমণের জেরে সংকট তৈরি হলে তিনি আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করার সিদ্ধান্ত নেন।

বন্ধ করুন