বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ব্রিটেনের ধনীতমের তালিকায় ইনফোসিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নারায়ণ মূর্তির মেয়ে!
ফাইল ছবি: রয়টার্স (REUTERS)

ব্রিটেনের ধনীতমের তালিকায় ইনফোসিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নারায়ণ মূর্তির মেয়ে!

  • ঋষি-অক্ষতার ৪টি বড় বাড়ি-জমি রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ৭ মিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের ৫ বেডরুমের বাড়ি, লন্ডনের কেনসিংটনে এবং ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা মনিকাতে বিলাসবহুল ফ্ল্যাটও।

ব্রিটেনের ধনীতমের তালিকা। আর তাতে স্থান সেদেশের অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনকের স্ত্রী অক্ষতা মূর্তিও। আর তা হবে না-ই বা কেন!

'দ্য সানডে টাইমস ইউকে রিচ লিস্ট' অনুযায়ী, ব্রিটেনের ধনীতম ২৫০ জনের মধ্যে একজন অক্ষতা মূর্তি। তাঁর নেট ওয়ার্থ ৭৩০ মিলিয়ন পাউন্ড। অর্থাত্ খোদ ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথ টু-এর থেকেও বেশি ধনসম্পদের মালিক তিনি। রানি এলিজাবেথের ব্যক্তিগত সম্পদ প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন পাউন্ড ($৪৬০ মিলিয়ন)।

আসলে, এর উত্তর অক্ষতা মূর্তির বংশ পরিচয়েই। ইনফোসিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এন আর নারায়ণ মূর্তির মেয়ে অক্ষতা। ভারত তথা বিশ্বের অন্যতম বড় আইটি সংস্থা ইনফোসিস। ফলে অক্ষতা যে ধনীতমের তালিকায় আসবেন, সেটাই স্বাভাবিক।

ঋষি-অক্ষতার ৪টি বড় বাড়ি-জমি রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ৭ মিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের ৫ বেডরুমের বাড়ি, লন্ডনের কেনসিংটনে এবং ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা মনিকাতে বিলাসবহুল ফ্ল্যাটও।

অক্ষতা ২০১৩ সালে সুনাকের সঙ্গে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল কোম্পানি ক্যাটামারান ভেঞ্চারস স্থাপন করেন। সেই সংস্থার ডিরেক্টর তিনি। তাছাড়া সমাজসেবা, শিল্প, ডিজাইনের কাজেও জড়িত তিনি।

তবে অক্ষতার এই সম্পদ ও ব্যবসা ঘিরেই রাজনৈতিক চাপে ঋষি সুনক।

সাম্প্রতিক এক রিপোর্টে ওঠে বড় অভিযোগ। তাতে বলা হয়, অক্ষতা মূর্তির বৈদেশিক উপার্জনে কর ছাড় দিয়েছে ব্রিটিশ কর কর্তৃপক্ষ। বিতর্কের উত্তরে অক্ষতা জানান, তাঁকে 'ইউকে কর নীতিতে অ-আবাসিক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।' এর অর্থ হল, ইনফোসিস থেকে ব্রিটেনের বাইরে থেকে আসা রিটার্নের উপর ব্রিটেনে কর প্রযোজ্য নয়।

তবে চাপের মুখে অন্য সিদ্ধান্ত নেন অক্ষতা। তিনি জানান, সমস্ত বিশ্বব্যাপী আয়ের উপরেও ব্রিটেনে কর দিতে শুরু করবেন তিনি। নিজেদের ভারতীয় আয়ের উপরেও কর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সমালোচকদের কথায়, অর্থমন্ত্রী হিসাবে রাশিয়াকে অর্থনৈতিক বয়কটের পক্ষে সওয়াল করছেন ঋষি। এদিকে তাঁর স্ত্রীর সংস্থা ইনফোসিস রাশিয়ায় দিব্যি ব্যবসা করে চলেছে। যদিও বিতর্কের মুখে ব্রিটিশ অর্থমন্ত্রী জানান, তাঁর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী'র সংস্থার কোনও যোগ নেই। তাছাড়া রাশিয়ায় ইনফোসিস মূলত আন্তর্জাতিক প্রকল্পে কাজ করে। সেদেশের জন্য কাজ করে না। যদি তাতেও থামছে না বিতর্ক।

বন্ধ করুন