বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'চিন্তার কারণ ড্রোন-সুড়ঙ্গ', হাতে নয়া প্রযুক্তি চাইলেন বিএসএফ প্রধান
ড্রোন হামলা নিয়ে চিন্তিত বিএসএফ প্রধান (ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস)
ড্রোন হামলা নিয়ে চিন্তিত বিএসএফ প্রধান (ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস)

'চিন্তার কারণ ড্রোন-সুড়ঙ্গ', হাতে নয়া প্রযুক্তি চাইলেন বিএসএফ প্রধান

  • বিএসএফ প্রধান সীমান্ত এলাকায় থাকা সুড়ঙ্গ এবং ড্রোন হামলা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

জম্মুতে সম্প্রতি যে ড্রোন হামলা চালানো হয় তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন বিএসএফ প্রধান রাকেশ আস্থানা। শুক্রবার নয়াদিল্লিতে একটি ওয়েবিনারে অংশ নিয়েছিলেন রাকেশ আস্থানা। সেখানেই তিনি জানান যে ড্রোন প্রতিহত করতে নয়া প্রযুক্তি হাতে চাইছেন তারা। এদিন বিএসএফ এবং ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড ইনফর্মেশন টেকনোলজি মন্ত্রকের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই ওয়েবিনারটি।

এদিন ওয়েবিনারে কথা বলার সময় বিএসএফ প্রধান সীমান্তের সুড়ঙ্গ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি জানান, এই সুড়ঙ্গগুলি চিহ্নিত করতে হবে। পাশাপাশি বিচ্ছিনতাবাদীদের হাতে থাকা প্রযুক্তি এবং ড্রোন চিহ্নিত করার কথা বলেন রাকেশ আস্থানা। এই বিষয়টি সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে সাহায্য করে।

এদিন বিএসএফ প্রধান বলেন, 'খুব শীঘ্রই দেশে অ্যান্টি-ড্রোন প্রযুক্তির উদ্ভাবন চাই যাতে এই যন্ত্রের ধ্বংসলীলা ঠেকানো যায়। এই ড্রোন সীমান্তে মাদক পাচার এবং জঙ্গি কার্যকলাপে মদত দিচ্ছে। এখন এগুলি হামলার কাজেও লাগানো হচ্ছে। সম্প্রতি জম্মুতে যে হামলা চালানো হয় তা আপনারা সবাই দেখেন। ভারতের ইতিহাসে এটা প্রথম এমন হামলা ছিল।'

তিনি আরও বলেন, 'আগে সীমান্তে ড্রোন মূলত অস্ত্র এবং মাদক পাচারে ব্যবহার হত। তবে এখন তো দেখা যাচ্ছে যে তারা এতে করে বিস্ফোরক বোঝাই করে হামলা চালাচ্ছে। এটা খুব গুরুতর এবং ভয়ংকর।' এই উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি জানান, ড্রোন হামলাকে ঠেকাতে হলে দরকার বৈদ্যুতিন ট্র্যাকার সিস্টেমের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি।

উল্লেখ্য, গতকাল জম্মুর আরনিয়া সেক্টরে সীমান্ত পার করে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করছিল একটি ড্রোন। সেটিকে গুলি করে ভাগায় বিএসএফ। বিএসএফ-এর অনুমান, এই ড্রোনটি সম্ভবত গুপ্তচরবৃত্তির জন্যে ব্যবহার করা হয়েছিল। সেনার পোস্টের উপর নজরদারি চালাতে এটি ওড়ানো হয়েছিল পাকিস্তানের দিক থেকে। এই ঘটনার কয়েকদিন আগে কালুচক এবং কুঞ্জওয়ানিতে অবস্থিত সেনা ঘাঁটির উপরেও উড়তে দেখা গিয়েছিল ড্রোন।

 

বন্ধ করুন