বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > EPF-এ বার্ষিক করবিহীন অনুদানের সর্বোচ্চসীমা করা হতে পারে ৫ লাখ টাকা: রিপোর্ট

EPF-এ বার্ষিক করবিহীন অনুদানের সর্বোচ্চসীমা করা হতে পারে ৫ লাখ টাকা: রিপোর্ট

সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সরকারি কর্মচারীদের মতোই সুবিধা পাবেন অন্যান্য বেতনভুক কর্মীরা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে রয়টার্স)

গত বছরের বাজেটে প্রভিডেন্ট ফান্ডে বেতনভুক কর্মীদের বার্ষিক করবিহীন অনুদানের সর্বোচ্চসীমা বাড়িয়ে ২.৫ লাখ করেছিল কেন্দ্র।

প্রভিডেন্ট ফান্ডে বেতনভুক কর্মীদের বার্ষিক করবিহীন অনুদানের সর্বোচ্চসীমা বাড়িয়ে পাঁচ লাখ টাকা করা হতে পারে। অর্থাৎ একলপ্তে বার্ষিক অনুদানের পরিমাণ দ্বিগুণ করার ভাবনাচিন্তা করছে কেন্দ্র। সূত্র উদ্ধৃত করে ‘হিন্দুস্তান টাইমসে’ একথা জানানো হয়েছে। সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সরকারি কর্মচারীদের মতোই সুবিধা পাবেন অন্যান্য বেতনভুক কর্মীরা।

বিষয়টির সঙ্গে অবহিত কয়েকজন আধিকারিক ‘হিন্দুস্তান টাইমসে’ বলেছেন, ‘এই বিষয়টি ক্ষেত্রে ন্যায্য এবং বৈষম্যহীন করার জন্য বিভিন্ন মন্ত্রক এবং দফতরের কাছে আর্জি জমা পড়েছে। সঙ্গে অন্যতম কার্যকরী সামাজিক সুরক্ষার মাধ্যমের সীমা বাড়ানোর আর্জিও জানানো হতে থাকে। বিষয়টি ভাবনাচিন্তা করা হচ্ছে।’ অপর এক আধিকারিক ‘হিন্দুস্তান টাইমস’-কে বলেছেন, ‘সমস্ত বাস্তবোচিত কারণের জন্য সকল বেসরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে এমপ্লয়ার্স কন্ট্রিবিউটিশন (পিএফে চাকরিদাতাদের অনুদান) এবং এমপ্লয়িস কন্ট্রিবিউটিশন (পিএফে কর্মীদের অনুদান) - দুটোই কস্ট টু কোম্পানির (সিটিসি) অন্তর্গত। তাই বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, গত বছরের বাজেটে প্রভিডেন্ট ফান্ডে বেতনভুক কর্মীদের বার্ষিক করবিহীন অনুদানের সর্বোচ্চসীমা বাড়িয়ে ২.৫ লাখ করেছিল কেন্দ্র। পরবর্তীতে সেই সীমা বাড়িয়ে পাঁচ লাখ টাকা করা হয়েছিল। তবে সেই সুবিধা পেতেন শুধুমাত্র সরকারি কর্মচারীরা। তাঁদের ক্ষেত্রে চাকরিদাতারা পিএফের অনুদান দেয় না। যদিও কেন্দ্রের সেই পদক্ষেপকে ‘বৈষম্যমূলক’ বলে দাবি করেছিলেন কর বিশেষজ্ঞদের একাংশ।

বন্ধ করুন