বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > বোরখা ও হিজাব কোনও নারীর পছন্দের হতে পারে না, 'ইউনিফর্ম ড্রেস কোড' চান তসলিমা
তসলিমা নাসরিন।

বোরখা ও হিজাব কোনও নারীর পছন্দের হতে পারে না, 'ইউনিফর্ম ড্রেস কোড' চান তসলিমা

  • বরাবরের মতোই সমস্ত সংস্কার থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে নারীদের মুক্তির গান শোনালেন তসলিমা।

একজন মুসলিম, খ্রীষ্টান অথবা হিন্দু মৌলবাদীর মধ্যে বাস্তবে কোনও ফারাক নেই। তারা সকলেই অসহিষ্ণু। লিখেছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তার সঙ্গেই এবার হিজাব  ও বোরখা নিয়েও মতামত দিয়েছেন লেখিকা। তসলিমার সাফ কথা, বোরখা বা হিজাব কোনও নারীর পছন্দের হতে পারে না। ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে যখন হিজাব বিতর্ক মাথাচাড়া দিচ্ছে, যখন উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টির নেত্রী রুবিনা খানম বলছেন, হিজাবে হাত দিলে হাত কেটে নেব, তখনই বরাবরের মতোই সমস্ত সংস্কার থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে নারীদের মুক্তির গান শোনালেন তসলিমা। 

তসলিমা নাসরিন টুইটারে লিখেছেন, 'তাঁদের এগুলি পরতে হয় যখন তাঁদের কাছ থেকে পছন্দগুলি কেড়ে নেওয়া হয়। পলিটিকাল ইসলামের মতোই বোরখা ও হিজাবও আজ পলিটিকাল।' একটি সংবাদমাধ্যমের জন্য় কলম ধরেছেন তিনি। লিখেছেন, 'মুসলিম নারীরা বোরখাটিকে অন্ধকার যুগের সতীত্ব রক্ষার কবচ হিসাবে দেখেন। আমি বিশ্বাস করি ইউনিফর্ম সিভিল কোড ও ইউনিফর্ম ড্রেস কোড দ্বন্দ্ব এড়ানোর জন্য খুব প্রয়োজনীয়। শিক্ষার অধিকার, ধর্মের অধিকারের উপরে নয়।'

এদিকে হিজাব বিতর্ক এখনও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে মাঝেমধ্যেই মাথাচাড়া দিচ্ছে। এনিয়ে পক্ষে, বিপক্ষে নানা মত উঠে আসছে। রাজনৈতিক কাদাছোঁড়াছুঁড়িও শুরু হয়েছে। তবে ইতিমধ্য়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে আবেদন করা হয়েছে, কেন্দ্র, রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য কমন ড্রেস কোড যাতে চালু করা যায় । তবে শীর্ষ আদালত ইতিমধ্যেই জানিয়েছে, নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষা করবে আদালত, যথা সময় বিষয়টি গ্রহণ করা হবে। তবে হাইকোর্ট রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে, গেরুয়া উড়নি, চাদর, হিজাব সহ কোনও ধর্মীয় পতাকা নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্লাসরুমে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। 

 

বন্ধ করুন