বাড়ি > ঘরে বাইরে > বড়সড় সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভার, ১৪ খারিফ শস্যের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বাড়ল ৫০-৮৩%
পাড়ুইয়ে চলছে ধান চাষ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
পাড়ুইয়ে চলছে ধান চাষ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

বড়সড় সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভার, ১৪ খারিফ শস্যের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বাড়ল ৫০-৮৩%

ব্যাঙ্ক থেকে নেওয়া ঋণ মেটানোর সময়সীমা একমাস বাড়ানো হয়েছে।

ধানের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বাড়াল কেন্দ্র। পাশাপাশি আরও ১৩ টি খারিফ শস্যের ন্যূনতম দর বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

দ্বিতীয় দফায় প্রথম বর্ষপূর্তির পর সোমবার প্রথম কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক হয়। বৈঠকে একাধিক ‘ঐতিহাসিক’ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বিভিন্ন মহলে জল্পনা ছড়িয়ে পড়ে। বৈঠক পরবর্তী সাংবাদিক বৈঠকের শুরুতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরও দাবি করেন, কৃষি এবং ক্ষুদ্র, ছোটো, মাঝারি শিল্পের ক্ষেত্রে একাধিক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পরে কৃষি সংক্রান্ত ঘোষণার সময় কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার বলেন, 'কৃষি খরচ এবং মূল্য কমিশনের (সিএসিপি) সুপারিশের ভিত্তিতে ১৪ টি শস্যের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বৃদ্ধিতে অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। চলতি বছরের জন্য প্রতি কুইন্টালে ধানের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ৫৩ টাকা বাড়িয়ে ১,৮৬৮ টাকা করা হল।'

কৃষিমন্ত্রী দাবি করেন, কৃষকরা যে অর্থ খরচ করবেন, তার উপর ৫০ শতাংশ টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করবে ধানের সহায়ক মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত। তবে এটা মোদী সরকারের নয়া পরিকল্পনা নয়। বরং ২০১৮-১৯ সালের সাধারণ বাজেটের সময় সেই বিষয় ঘোষণা করা হয়েছিল। দেশজুড়ে ফসলের গড় দামের থেকে সহায়ক মূল্য ১.৫ গুণ বাড়ানো হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। 

তবে শুধু ধান নয়, আরও ১৩ টি খারিজ শস্যের ক্ষেত্রে ৫০ থেকে ৮৩ শতাংশের মধ্যে সহায়ক মূল্য বাড়ানো হয়েছে। জোয়ার এবং বাজরার দাম কুইন্টাল প্রতি বাড়িয়ে করা যথাক্রমে হয়েছে ২,৬২০ এবং ২,১৫০ টাকা। বাজরার সহায়ক মূল্য সর্বাধিক ৮৩ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। রাগী, সয়াবিন, তিল, তুলোর দাম ৫০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। অহর ডাল এবং ভুট্টার সহায়ক মূল্যে বেড়েছে যথাক্রমে  ৫৮ এবং ৫৩ শতাংশ।

কিন্তু ধানের তুলনায় ডাল বা তৈলবীজের সহায়ক মূল্য বেশি বাড়ানো হয়েছে কেন? বিষয়টি নিয়ে কমট্রেডের বিশ্লেষক অভিষের আগরওয়াল জানান, চাহিদা ও জোগানের অসাম্যতা ঠিক করতে ডাল, তৈলবীজের ন্যূনতম দর বেশি বাড়ানো হয়েছে যাতে কৃষকরা সেই সব চাষের প্রতি আকর্ষিত হন।

ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি কৃষিক্ষেত্রের জন্য আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিয়েছে মন্ত্রিসভা। কৃষিমন্ত্রী জানান, কৃষি এবং কৃষি সংক্রান্ত কাজের জন্য ব্যাঙ্ক থেকে স্বল্পমেয়াদি ঋণের শোধ করার সময়সীমা বাড়িয়ে ৩১ অগস্ট করা হচ্ছে। যা আগে বাড়িয়ে ৩১ জুলাই করা হয়েছিল।

বন্ধ করুন