বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > CBI FIR against Kolkata Police: টাকার বিনিময়ে PIL মামলায় কলকাতা পুলিশ, ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে FIR করল সিবিআই

CBI FIR against Kolkata Police: টাকার বিনিময়ে PIL মামলায় কলকাতা পুলিশ, ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে FIR করল সিবিআই

প্রতীকি ছবি

সিবিআইয়ের একজন সিনিয়র আধিকারিক বলেছেন যে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী অমিত আগরওয়াল অর্থ তছরুপের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি রাঁচি হাই কোর্টের আইনজীবী রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে মিথ্যা পুলিশি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।

নগদ টাকার বিনিময়ে পিআইএল মামলায় অমিত আগরওয়াল নামক এক ব্যবসায়ী এবং কলকাতা পুলিশের 'অজ্ঞাত আধিকারিকদের' বিরুদ্ধে এফআইআর করল সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন। সিবিআইয়ের এক সিনিয়র আধিকারিক জানিয়েছেন যে বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় এজেন্সি কলকাতা এবং ঝাড়খণ্ডের একাধিক স্থানে তল্লাশি চালিয়েছে এই মামলায়। নাম প্রকাশে সেই আধিকারিকই হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন, 'সিবিআই কলকাতার একজন ব্যবসায়ী, কলকাতা পুলিশের অজ্ঞাত পরিচয় আধিকারিক এবং অন্যান্যদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।' (আরও পড়ুন: ভারত সীমান্তের খুব কাছেই তৈরি হচ্ছে চিনা বাঁধ, প্রভাব পড়তে পারে গঙ্গার প্রবাহে)

সিবিআইয়ের একজন সিনিয়র আধিকারিক বলেছেন যে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী অমিত আগরওয়াল অর্থ তছরুপের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি রাঁচি হাই কোর্টের আইনজীবী রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে মিথ্যা পুলিশি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। প্রসঙ্গত, গতবছর ঝাড়খণ্ডের একজন আইনজীবীকে গ্রেফতার করেছিল কলকাতা পুলিশ। কলকাতার এক ব্যবসায়ীকে ব্ল্যাকমেল করার অভিযোগে সেই আইনজীবীকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ধৃত আইনজীবীর নাম রাজীব কুমার। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, একটি জনস্বার্থ মামলা প্রত্যাহারের জন্য সেই আইনজীবী এক ব্যবসায়ীর থেকে ১০ কোটি টাকা চেয়েছিলেন। প্রসঙ্গত, এই আইনজীবী ঝাড়খণ্ড সরকারের বিরুদ্ধে মনরেগা সংক্রান্ত মামলা লড়ছেন। এই মামলাতেই ইডি প্রাক্তন খনি সচিব পুজা সিংহলকে গ্রেফতার করেছিল। এদিকে মনরেগা মামলা ছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের বিরুদ্ধে চলা এক মামলাও লড়ছেন রাজীব।

আরও পড়ুন: ৪ ঘণ্টা পর রাত ২টোয় শেষ হল অনুরাগ-বজরংদের বৈঠক, আজও মুখোমুখি বসতে পারে দুই পক্ষ

এহেন রাজীবকে মধ্য কলকাতার একটি শপিংমল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাঁর কাছ থেকে ৫০ লাখ টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছিল কলকাতা পুলিশ। কলকাতা পুলিশ অভিযোগ করেছিল, 'অভিযুক্ত আইনজীবী কলকাতার এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে রাঁচি হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন। সেই মামলা প্রত্যাহারের জন্য তিনি প্রথমে ব্যবসায়ীর কাছে ১০ কোটি টাকা দাবি করেছিলেন। আলোচনার পরে তিনি তাঁর দাবির পরিমাণ নাকি কমিয়ে ৪ কোটি করেন। পরে ১ কোটি টাকায় রফদফা হয় পুরো মামলা।' অভিযোগ, এই এক কোটি টাকা দুই কিস্তিতে নেওয়ার কথা ছিল আইনজীবীর। সেই কিস্তি নিতেই কলকাতায় এসেছিলেন রাজীব।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন