বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগে সাসপেন্ড ২ সিবিআই আধিকারিক, নিশানায় আরও দুই
ঘুষ নিয়ে ত্রাণের অভিযোগে সাসপেন্ড হলেন দুই সিবিআই আধিকারিক। 
ঘুষ নিয়ে ত্রাণের অভিযোগে সাসপেন্ড হলেন দুই সিবিআই আধিকারিক। 

আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগে সাসপেন্ড ২ সিবিআই আধিকারিক, নিশানায় আরও দুই

  • ঘুষের বিনিময়ে ত্রাণের অবৈধ চক্র চালানোর অভিযোগে এক ইন্সপেক্টর ও এক স্টেনোগ্রাফারকে সাসপেন্ড করল সিবিআই। দুই সুপারিন্টেন্ডেন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি DoPT-কে।

ঘুষের বিনিময়ে ত্রাণের অবৈধ চক্র চালানোর অভিযোগে এক ইন্সপেক্টর ও এক স্টেনোগ্রাফারকে সাসপেন্ড করল সিবিআই। পাশাপাশি, দুই সুপারিন্টেন্ডেন্ট আর কে ঋষি ও আর কে সাংওয়ানের বিরুদ্ধে কর্মী ও প্রশিক্ষণ দফতরকে (DoPT) ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আর্জি জানাল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বিভাগ। 

ক্লাস ওয়ান গেজেটেড অফিসারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সিবিআই অথবা যে কোনও প্রশাসনিক সংস্থাকে DoPT-কে জানানোই নিয়ম। অন্য দিকে, ইন্সপেক্টর এবং তার নীচের পদাধিকারীদের সাসপেন্ড করার ক্ষমতা রয়েছে স্বয়ং সিবিআই ডিরেক্টরের। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গোয়েন্দা সংস্থার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘অন্য কোনও সংস্থাই হোক বা নিজ সংস্থা, দুর্নীতির বিরুদ্ধে আপসহীন অবস্থান রয়েছে সিবিআই-এর। এই কারণে দুই আধিকারিককে সাসপেন্ড করা হয়েছে এবং অন্য দুই জনের বিরুদ্ধে পক্ষেপের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের আওতায় থাকা সংস্থাগুলির থেকে গোপন তথ্য ফাঁস বাবদ নিয়মিত ঘুষ নিতেন চার অভিযুক্ত আধিকারিক। দুই আধিকারিকের বিরুদ্ধে ৫৫ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার প্রমাণ ইতিমধ্যে মিলেছে। অন্য দুই জনকে দেওয়া ঘুষের পরিমাণ সম্পর্কে অনুসন্ধান শুরু হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস-এ প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী, ২০১৮ সাল থেকে সিবিআই-এর অন্দরে ঘুষচক্র চলেছে। মনে করা হচ্ছে, সিবিআই তদন্তাধীন মামলাগুলির গুরুত্ব কমাতে অবৈধ লেনদেন চালু রয়েছে এবং তাতে সংস্থার আরও বেশ কয়েকজন কর্মী জড়িত রয়েছেন। 

অভিযুক্ত চার আধিকারিককে দুর্নীতি দমন বিভাগের ৪ নম্বর ইউনিটে জেরা করেছেন পুলিশ সুপার পদাধিকারী এক সিবিআই কর্তা। 

অভিযুক্তদের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া দেওয়া না হলেও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংস্থার এক ক্যাডার অফিসার প্রশ্ন তুলেছেন, ‘একজন ইন্সপেক্টর ও এক স্টেনোগ্রাফার এসপি-র অজ্ঞাতসারে কী করে গোপন তথ্য ফাঁস করতে পারেন? তদন্তের ব্যাপ্তি শুধুমাত্র নিম্ন পদাধিকারীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হল কেন?’

একাধিক মোটা অঙ্কের ব্যাঙ্ক প্রতারণার ঘটনা তদন্তকালীন নিজের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে এ হেন দুর্নীতির অভিযোগে স্বাভাবিক ভাবেই চাপে পড়েছে সিবিআই।

বন্ধ করুন