বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Ceasefire in Ukraine: ইউক্রেনের একাধিক শহরে ‘সাময়িক’ যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা ‘মানবিক’ রাশিয়ার
ইউক্রেনের একাধিক শহরে ‘সাময়িক’ যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা ‘মানবিক’ রাশিয়ার (via REUTERS)

Ceasefire in Ukraine: ইউক্রেনের একাধিক শহরে ‘সাময়িক’ যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা ‘মানবিক’ রাশিয়ার

  • যুদ্ধের ভয়াবহতা যাতে নিজেদের দেশে প্রচারিত না হয়, সেই কারণে একাধিক পদক্ষেপ করেছে রাশিয়া।

ইউক্রেনের মারিউপোল শহরে যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা রাশিয়ার। পাশাপাশি ভলনোভাকা শহরেও যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা করেছে রাশিয়া। জিএমটির সময়ে সকাল ৬টা থেকে মোট সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধ বিরতি ঘোষণা করেছে রাশিয়া। যুদ্ধ ক্ষেত্রে আটকে পড়া সাধারণ মানুষ ও বিদেশি পড়ুয়াদের নিরাপদ স্থানে নিয়ে যেতে করিডোর তৈরি করে দিতেই এই যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা করা হয়েছে রাশিয়ার তরফে। এর আগে ইউক্রেনের কর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসে উভয় পক্ষই ‘মানবিক করিডোর’ তৈরির বিষয়ে সহমত পোষণ করেছিল। এই আবহে এবার পূর্ব ইউক্রেনে অবস্থিত কৃষ্ণ সাগরের তীরের এই বন্দশহরে যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা রাশিয়ার।

এদিকে এর আগে মারিউপোলের মেয়র জানিয়েছিলেন, রুশ সেনা ইউক্রেনের কৌশলগত এই বন্দর শহরটিকে অবরুদ্ধ করেছে। এই বন্দর শহরটির জনসংখ্যা প্রায় সাড়ে চার লক্ষ। শহরটিতে গত কয়েকদিন ধরেই লাগাতার শেলিং চালিয়েছে রুশ বাহিনী। এর জেরে বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বহু সাধারণ নাগরিক জখম হয়েছিলেন। পাশাপাশি শীতের জেরেও অনেকে কষ্ট পাচ্ছিলেন। পানীয় জলের অভাব দেখা দেয়। খাবার নেই। বিদ্যুৎ ছাড়াই কোনওভাবে নগরবাসী বেঁচে এই শহরে। এই পরিস্থিতিতে বারংবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে যুদ্ধের ভয়াবহতা যাতে নিজেদের দেশে প্রচারিত না হয়, সেই কারণে ফেসবুকের মতো জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে রাশিয়া। পাশাপাশি ‘ভুয়ো খবর প্রতিরোধ আইন’ এনেছে রাশিয়া। যার জেরে বিবিসির মতো বহু আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমও রাশিয়ায় কাজ বন্ধ করেছে। এই আবহে নিজেদের ‘মানবিক’ চেহারা তুলে ধরতে রাশিয়ার তরফে যুদ্ধ বিরতির ঘোষণা করা হল। উল্লেখ্য, রাশিয়া প্রথম থেকেই ইউক্রেনে তাদের এই হামলাকে ‘সামরিক অভিযান’ বলে অভিহিত করেছে। এই সংঘর্ষকে ‘যুদ্ধ’ বলতে নারাজ রাশিয়া। এদিকে ইউক্রেন কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা জারি রেখেছে রাশিয়া। তবে পুতিন কোথায় গিয়ে এই সংঘর্ষ থামাবেন, তা জানা নেই কারোর।

বন্ধ করুন