বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > মহামারীর আকার ধারণ করছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, করোনাকালে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ কেন্দ্রের
চোখ রাঙাচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)
চোখ রাঙাচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

মহামারীর আকার ধারণ করছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, করোনাকালে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ কেন্দ্রের

  • এবার চোখ রাঙাচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস, করোনাকালে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ কেন্দ্রের।

করোনা ভাইরাস অতিমারীতে গত একবছরেরও বেশি সময় ধরে গোটা বিশ্ব জেরবার। বর্তমানে এই অতিমারীর জেরে নাজেহ অবস্থা দেশে। এই পরিস্থিতিতে এবার চোখ রাঙাচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। এই আবহে এবার রাজ্যগুলিকে সতর্ক বার্তা পাঠাল কেন্দ্রীয় সরকার। ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে দেশবাসীকে সতর্ক করতে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে এই সংক্রান্ত চিঠি গিয়েছে সব রাজ্যে।

কোভিড রোগ থেকে সেরে ওঠার সময়ে বা পরে যাঁরা ব্ল্যাক ফাংগাসে সংক্রমিত হচ্ছেন, বা সংক্রমিত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, তাঁদের বিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রককে জানাতে হবে৷ রাজ্যগুলিকে দেওয়া চিঠিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্মসচিব লব আগরওয়াল বলেন, 'সম্প্রতি একটা নয়া চ্যালেঞ্জ হিসেবে সামনে এসে দাঁড়িয়েছে একটা ফাঙ্গাল সংক্রমণ৷ বিভিন্ন রাজ্যে কোভিড রোগীদের মধ্যে, বিশেষত ডায়াবেটিকসের রোগীরা যাঁদের স্টেরয়েড থেরাপি দেওয়া হচ্ছে, তাঁদের মধ্যে এটির সংক্রমণের খবর আসছে৷ এই সংক্রমণ কোভিড রোগীদের অসুস্থতা ও মৃত্যুর হার বাড়াতে পারে৷'

ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সবচেয়ে নাজেহাল অবস্থা মহারাষ্ট্রের। সেখানে এই রোগের বলি হয়েছেন ৯০ জন। মোট সংক্রমিত ১৫০০-র বেশি। এদিকে করোনা সংক্রমণের মধ্যে দিল্লিতেও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণের ঘটনা৷ করোনার চিকিৎসায় স্টেরয়েড ব্যবহারের জেরে সম্প্রতি প্রায় ১৩০ জন জাতীয় রাজধানীতে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের শিকার হয়েছেন৷

এই ১৩০ জনের মধ্য়ে প্রায় ৭৫ জন দিল্লির এইমস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন৷ বাকিরা বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের বিরুদ্ধে লড়তে এইমস হাসাপাতাল কর্তৃপক্ষ নতুন গাইডলাইন তৈরি করছে বলে জানা গিয়েছে৷

এখনও পর্যন্ত দেশের একাধিক রাজ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণের খবর সামনে এসেছে৷ সেই রাজ্যগুলি হল কর্নাটক, উত্তরাখণ্ড, তেলাঙ্গানা, মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, হরিয়ানা এবং বিহার৷ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের মতে, লোকজন ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হচ্ছেন কারণ, পরিবেশের মধ্যে থাকা ছত্রাকের বীজের সংস্পর্শে আসছেন তাঁরা৷ এমকি এটি ত্বকের মধ্যেও বাসা বাঁধছে, কোনও ক্ষতস্থানের মধ্যে দিয়ে৷ আর করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তিরাই এই ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণের শিকার হচ্ছেন৷

এদিকে ব্ল্য়াক ফাঙ্গাসকে আগেই মহামারী হিসেবে ঘওষণা করা হয়েছে রাজস্থানে৷ বুধবার সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের আধিকারিকদের তরফে এমনই জানানো হয়ে৷ তথ্য বলছে, রাজস্থানে ইতিমধ্যেই অন্তত ১০০ জন ব্ল্য়াক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়েছেন৷ সরকারের তরফে অন্তত এমনই দাবি করা হয়েছে৷

বন্ধ করুন