বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ওমিক্রনের বাড়বাড়ন্তের মাঝে বুস্টার ডোজে কতটা স্বস্তি দেবে? জবাব দিল কেন্দ্র
ডক্টর বলরাম ভার্গব। (সৌজন্য এএনআই)

ওমিক্রনের বাড়বাড়ন্তের মাঝে বুস্টার ডোজে কতটা স্বস্তি দেবে? জবাব দিল কেন্দ্র

  • ওমিক্রনের বাড়বাড়ন্তের মাঝে যখন ফের একবার কোভিডের পরবর্তী স্রোত নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, তখন নিজের বার্তায় বুস্টার ডোজ সম্পর্কে কিছুটা ধারণা স্পষ্ট করেছে কেন্দ্র।

গোটা দেশে হু হু করে বাড়তে শুরু করে দিয়েছে ওমিক্রনের কেস। এদিকে, জানুয়ারির শুরুতেই দেশে করোনার বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের পরবর্তী পর্ব শুরু হতে চলেছে। জানুয়ারি মাস থেকে করোনা যোদ্ধা, স্বাস্থ্য কর্মী ও ষাটোর্ধ (যাঁদের কো মর্বিডিটি রয়েছে) তাঁদের বুস্টার ডোজের ভ্যাকসিনেশন শুরু হওয়ার কথা। অন্যদিকে, ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের ভ্যাকসিনেশন শুরু হওয়ার কথা রয়েছে এই সময়ে। সেই প্রেক্ষাপটে প্রশ্ন উঠছে, এই বুস্টার ডোজ কতটা কার্যকরী হবে? তার জবাবি ব্যাখ্যাই এদিন উঠে এল আইসিএমআরএর ডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর বলরাম ভার্গবের তরফে।

এদিন আইসিএমআর-এর ডিরেক্টর জেনারেল ডক্টর ভার্গব বলেন, 'সমস্ত কোভিড ভ্যাকসিন, যা ভারতেরও হতে পারে, বা ইজরায়েল, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউকে, চিনেরও হতে পারে, তারা প্রাথমিকভাবে রোগের দংশকে কমিয়ে দেয়। তবে সংক্রমণকে রুখে দিতে পারে না। সতর্কতামূলক ডোজ প্রাথমিকভাবে সংক্রমণ, হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুর তীব্রতা কমানোর জন্য।' ওমিক্রনের বাড়বাড়ন্তের মাঝে যখন ফের একবার কোভিডের পরবর্তী স্রোত নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, তখন এই বার্তায় বুস্টার ডোজ সম্পর্কে কিছুটা ধারণা স্পষ্ট করেছে কেন্দ্র। একই সঙ্গে বৃহস্পতিবার, আইসিএমআর-এর ডিরেক্টর জেনারেল বলেন, ভ্যাকসিনেশনের আগে বা পরে সব সময়ই মাস্ক পরে থাকতে হবে। তিনি বলেন, যতটা সম্ভব জমায়েত এড়িয়ে যেতে হবে। ডক্টর ভার্গবের বার্তা, 'করোনাভাইরাসের আগের এবং বর্তমানে সঞ্চালিত স্ট্রেনের জন্য চিকিৎসা নির্দেশিকা একই রয়েছে। হোম আইসোলেশন একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ হয়ে রয়েছে এখনও।'

এদিকে, আজকের সাংবাদিক বৈঠকে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব লাভ আগরওয়াল বলেন, বর্তমানে দেশে প্রায় দৈনিক ১০ হাজার করোনা কেস উঠে আসছে। এদিকে, পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি নিয়েও রয়েছে উদ্বেগ। বড়দিন থেকে বর্ষবরণের উৎসবের মেজাজে এরাজ্যে শেষ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা ২,১২৮ জন। এদিকে মুম্বইতে শেষ ১ দিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬৭১জন। এছাড়াও তামিলনাড়ু, দিল্লি, কর্ণাটক, গুজরাতের পরিস্থিতিও অনেককেই উদ্বেগে রাখছে। এবিষয়ে সচেতনতার বার্তা এসেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিবের তরফেও। উল্লেখ্য, এই উদ্বেগজনক পরিস্থিততে আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে দেশে চালু হবে বুস্টার ডোজের প্রথম দফা। তবে তার আগেই কেন্দ্র স্পষ্ট করেছে যে, ভ্যাকসিন কেবলই রোগের প্রগাঢ়তাকে কমানোর উপায়, যাতে হাসপাতালে ভর্তি না হতে হয় রোগের জেরে। কিন্তু ভ্যাকসিন দিয়ে রোগ নিরাময় হবে না।

বন্ধ করুন