বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > তিন রাত্রি হাজতবাসের পর শেষ পর্যন্ত জামিনে মুক্ত মুখ্যমন্ত্রী বাঘেলের বাবা
ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলের বাবা নন্দকুমার বাঘেল (ফাইল ছবি: এএনআই) (ANI)
ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলের বাবা নন্দকুমার বাঘেল (ফাইল ছবি: এএনআই) (ANI)

তিন রাত্রি হাজতবাসের পর শেষ পর্যন্ত জামিনে মুক্ত মুখ্যমন্ত্রী বাঘেলের বাবা

  • তিনদিন বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকার পর শেষ পর্যন্ত শুক্রবার রায়পুরের কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হল নন্দকুমার বাঘেলকে।

ব্রাহ্মণদের বয়কট করার জাক দিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় গ্রেফতার করা হয়েছিল ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলের বাবা নন্দকুমার বাঘেলকে। তিনদিন বিচারবিভাগীয় হেফাজতে থাকার পর শেষ পর্যন্ত শুক্রবার রায়পুরের কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হল নন্দকুমার বাঘেলকে। এর আগে ৮৬ বছর বয়সীকে ১৫ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত।

উল্লেখ্য, এর আগে নন্দকুমার বাঘেল ব্রাহ্মণদের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়ে বলেছিলেন, 'গঙ্গা থেকে ভল্গা নদীর দিকে পাঠানো হবে ব্রাহ্মণদের। তাঁরা বিদেশি। তাঁরা আমাদের অচ্ছুৎ করে রেখেছিলেন এবং আমাদের সব অধিকার কেড়ে নিয়েছিলেন। গ্রামবাসীদের বলব, ব্রাহ্মণদের গ্রামে ঢুকতে দেবেন না।' তাঁ এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে ভূপেশ বাঘেলের বাবার বিরুদ্ধে রায়পুরের ডিডি নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেই মামলার প্রেক্ষিতেই মঙ্গলবার গ্রেফতার করা হয় নন্দকুমার বাঘেলকে।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ভূপেশ বাঘেল বলেছিলেন, 'ছেলে হিসেবে আমি বাবাকে শ্রদ্ধা করি। তবে তিনি যে ভুল করেছেন একজন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তা আমি এড়িয়ে যেতে পারি না। আমাদের সরকারে কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। যদি তিনি মুখ্যমন্ত্রীর বাবা হন, তিনিও নন। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি রক্ষা করা আমার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। যদি তিনি কোনও সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করে থাকেন, তাহলে আমি দুঃখিত। তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা হবে।'

তবে এরই মাঝে ভূপেশ বাঘেলের বাবার কারাবাস নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। ভাইরাল হওয়া এক ছবিতে দেখা গিয়েছিল একজন বৃদ্ধ চেয়ারে বসে খাচ্ছেন। দাবি করা হয়, ছবির ব্যক্তি গ্রেফতার হওয়া মুখ্যমন্ত্রীর বাবা। থানার ইনসপেক্টরের টেবিলে বসে তিনি খাচ্ছেন এমনটাই দাবি করা হয়। ওঠে বিতর্কের ঝড়।

বন্ধ করুন