বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারতের নয়া করোনা স্ট্রেনে ঘুম ছুটেছে চিনের, বাড়ছে আতঙ্ক
ভারতের নয়া করোনা স্ট্রেনে ঘুম ছুটেছে চিনের, বাড়ছে আতঙ্ক। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
ভারতের নয়া করোনা স্ট্রেনে ঘুম ছুটেছে চিনের, বাড়ছে আতঙ্ক। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

ভারতের নয়া করোনা স্ট্রেনে ঘুম ছুটেছে চিনের, বাড়ছে আতঙ্ক

দেশীয় সংবাদমাধ্যমের তরফে জানা গিয়েছে, চিনা পণ্যবাহী জাহাজের ১১ জন চিনা নাগরিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

চিন থেকে ছড়িয়ে পড়েছিল করোনাভাইরাস। আবার ফের চিনেই হানা দিল করোনা। এবার ভারতের নতুন করোনার স্ট্রেন পাওয়া গেল চিনের বেশ কয়েকটি শহরে। বৃহস্পতিবার বিশেষজ্ঞদের তরফে এমন কথাই জানা গিয়েছে।

চাইনিজ সেন্টার ফর ডিসিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মুখ্য বিশেষজ্ঞ হু জানইউ বলেন, ‘‌ভারতের নতুন করোনা স্ট্রেন আমাদের বেশ কিছু শহরে পাওয়া গিয়েছে। সবাই খুবই উদ্বিগ্ন ও চিন্তিত।’‌ যদি তিনি কোন শহরে কত জন আক্রান্ত হয়েছেন, তার কোনও বিস্তারিত রিপোর্ট দেননি, তবে দেশীয় সংবাদমাধ্যমের তরফে জানা গিয়েছে, চিনা পণ্যবাহী জাহাজের ১১ চিনা নাগরিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।একইসঙ্গে ঝিজিয়াং নামে উপকূলবর্তী প্রদেশের স্বাস্থ্য আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ভারত থেকে আসা করোনার নতুন স্ট্রেনটি ১১ জনের দেহে পাওয়া গিয়েছে। পণ্যবাহী জাহাজটি অন্ধ্রপ্রদেশের কাকিনাডা থেকে এসেছে। ওই জাহাজটি বাংলাদেশের চট্টগ্রাম, সিঙ্গাপুর ও চিনের জিয়েমেন বন্দরেও থেমেছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা ভাইরাসের মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে যেভাবে ভাইরাসের মিউটেশন প্রক্রিয়া চলছে, তা সহজে বন্ধ করা সম্ভব নয়। চিনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের বিবৃতি অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় যে ২০ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে তা সবই বিদেশ থেকে আগত।এখনও পর্যন্ত সরকারি রিপোর্ট অনুযায়ী, চিনের মূল ভূখণ্ডে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯০,৬৪২। মৃত্যু হয়েছে ৪,৬৩৬ জনের।

উল্লেখ্য, শুধু চিনেই নয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বের ১৭টি দেশে ভারতের নতুন করোনা স্টেন্টটি পাওয়া গিয়েছে। ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, সিঙ্গাপুরের মতো দেশেও ভারতের নতুন করোনা স্ট্রেনের হদিশ মিলেছে।

বন্ধ করুন