বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারতকে চাপে রাখার কৌশল, ফের একবার কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে চিন
চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়্যাং ই (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স) (REUTERS)

ভারতকে চাপে রাখার কৌশল, ফের একবার কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পাশে চিন

  • ফের একবার কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সুরে সুর মিলিয়ে ভারতকে চাপা রাখার চেষ্টা করল চিন।

ফের একবার কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সুরে সুর মিলিয়ে ভারতকে চাপা রাখার চেষ্টা করল চিন। শনিবার এই বিষয়ে ইসলামাবাদের পাশে দাঁড়িয়ে বেজং বলে কাশ্মীরে একতরফা কোনও বদলের বিরোধিতা করে তারা। এর জেরে ভারতীয় এই অঞ্চলে অশান্তি ছড়াতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছে চিন। উল্লেখ্য, চিনা বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন। সেখানে ৯ চিনা নাগরিকের মৃত্যু ছাড়াও কাশ্মীর ইস্যু উত্থাপিত হয়েছিল।

দুই দেশের বিদেশ মন্ত্রীদের বৈঠকের পর একটি যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। তাতে বলা হয়, 'চিনকে পাকিস্তান কাশ্মীর ইস্যুর বর্তমান পরিস্থিতির বিষয় অবগত করেছে। জম্মু ও কাশ্মীরে কীভাবে বর্তমানে পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে তা বেজিংকে জানিয়েছে ইসলামাবাদ। সেখানের পরিস্থিতি আপতকালীন হয়ে যাচ্ছে।'

বিবৃতিতে আরও বলা হয় যে, 'চিন কাশ্মীর ইস্যুকে ভারত-পাকিস্তানের ফেলে আসা ইতিহাসের একটি অংশ হিসেবে দেখে। এই বিষয়টি রাষ্ট্রসংঘের চার্টার অনুযায়ী শান্তিপূর্ণ ভাবে মেটানো উচিত। নিরাপত্তা কাউন্সিলের সংশ্লিষ্ট রেজোলিউশন এবং দ্বিপাক্ষিক সমঝোতাও মেনে চলা উচিত উভয় পক্ষের। এই অঞ্চলে একতরফা ভাবে কোনও বদলের বিরোধিতা করে চিন।'

যৌথ বিবৃতিতে চিন এবং পাকিস্তানের তরফে বলা হয়, 'দুই দেশই এটা মেনে নিয়েছে যে দক্ষিণ এশিয়াতে শান্তিপূর্ণ এবং স্থিতিশীল পরিস্থিতি বজায় রাখতে একে অপরকে সহযোগিতা করতে হবে। সব দেশের স্বার্থকে মাথায় রেখএই কাজ করতে হবে। আঞ্চলিক সমস্যা মেটাতে আলোচনা করতে হবে। এবং একে অপরকে সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। পাকিস্তানের সার্বভৌমত্য, স্বাধীনতার বিষয়ে চিন পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছে।' উল্লেখ্য, এই প্রসঙ্গে ভারত প্রথম থেকে বলে এসেছে, জম্মু ও কাশ্মীরে সংক্রান্ত যাবতীয় সিদ্ধান্ত ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এই বিষয়ে বিদেশি কোনও হস্তক্ষেপ ভারত বরদাস্ত করবে না।

বন্ধ করুন