বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Bharat Jodo Yatra Threat letter: মধ্যপ্রদেশে 'ভারত জোড়ো যাত্রা'র আগেই এল রাহুলকে টার্গেট বোমা হুমকি! তদন্তে পুলিশ

Bharat Jodo Yatra Threat letter: মধ্যপ্রদেশে 'ভারত জোড়ো যাত্রা'র আগেই এল রাহুলকে টার্গেট বোমা হুমকি! তদন্তে পুলিশ

রাহুল গান্ধী (ANI Photo) (AICC)

রাতারাতি এক সিদ্ধান্তে রাহুল গান্ধী স্থির করেন যে, তিনি মধ্যপ্রদেশে প্রবেশ করেই একটি স্থানীয় স্টেডিয়ামে থাকবেন। তারপরই ইন্দোরে একটি দোকানে বোমা হুমকি দিয়ে লেখা চিঠি উদ্ধার হয়। সেখানে বলা হয়েছে, যে ‘যদি স্থানীয় খালসা স্টেডিয়ামে রাহুল গান্ধী ও ভারত জোড়ো যাত্রার অংশগ্রহণকারীরা থাকেন, তাহলে শহরে বোমা বিস্ফোরণ করানো হবে।’

গত কয়েক মাস ধরেই ভারতের বিভিন্ন অংশে ‘ভারত জোড়ো পদযাত্রা’ চলছে। গত কয়েকদিন ধরে তা দক্ষিণ ভারতে সম্পন্ন হয়েছে। কিছুদিন আগেই তা প্রবেশ করে মহারাষ্ট্রে। এবার কংগ্রেসের এই ‘ভারত জোড়ো পদযাত্রা’ বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশে ঢোকার মুখে। আর তখন এই পদযাত্রা ঘিরে এল বোমা হুমকি।

রাতারাতি এক সিদ্ধান্তে রাহুল গান্ধী স্থির করেন যে, তিনি মধ্যপ্রদেশে প্রবেশ করেই একটি স্থানীয় স্টেডিয়ামে থাকবেন। তারপরই ইন্দোরে একটি দোকানে বোমা হুমকি দিয়ে লেখা চিঠি উদ্ধার হয়। সেখানে বলা হয়েছে, যে ‘যদি স্থানীয় খালসা স্টেডিয়ামে রাহুল গান্ধী ও ভারত জোড়ো যাত্রার অংশগ্রহণকারীরা থাকেন, তাহলে শহরে বোমা বিস্ফোরণ করানো হবে।’ পুলিশ সূত্রের খবর, স্থানীয় মিষ্টির দোকানে এই চিঠি উদ্ধার হয়। জুনি এলাকার ওই দোকানে কে বা কারা ওই চিঠি ফেলে রেখে দিয়ে গিয়েছে, তা নিয়ে রয়েছে জল্পনা। পরিচিতি মেলেনি চিঠির প্রেকদের। গোটা বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে মধ্যপ্রদেশ পুলিশ। যে চিঠি উদ্ধার হয়েছে তাতে রাহুল গান্ধীক নিশানা করেই লেখা হয়েছে বলে দেখা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই ঘটনা ঘিরে একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুসারে অভিযোগও দায়ের হয়েছে।

প্রশ্ন উঠছে, কে বা কারা এই ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে। ইন্দোর পুলিশ কমিশনার এইচ সি মিশ্র বলছেন, ‘মনে হচ্ছে, কোনও স্থানীয় দুষ্কৃতীর কাণ্ড এইটি’। তবে পুলিশ গোটা বিষয়টির তদন্তে নেমেছে। মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস প্রধান নীলভ শুক্লা এই চিঠি নিয়ে তদন্ত দাবি করেছেন। তিনি এও দাবি করেছেন যে, ভারত জোড়ো যাত্রা ঘিরে যেন আরও বেশি করে নিরাপত্তা ধরে রাখা হয়। উল্লেখ্য, মধ্যপ্রদেশে বর্তমানে রয়েছে শিবরাজ সিং চৌহানের নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। ফলে গোটা বিষয়টি নিয়ে রাহুলের নিরাপত্তা এখন শিবরাজ প্রশাসনের কাছে বেশ চ্যালেঞ্জ বলে মনে করা হচ্ছে। 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বন্ধ করুন