সোশ্যাল ডেস্টেন্সিং রাখাই একমাত্র উপায়  (AP)
সোশ্যাল ডেস্টেন্সিং রাখাই একমাত্র উপায় (AP)

Covid-19: কথা বলা, নিশ্বাস নেওয়া থেকেও ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস, দাবি গবেষকদের

এই চাঞ্চল্যকর তথ্য জানিয়েছে মার্কিন বৈজ্ঞানিকরা।

কেন সোশ্যাল ডিস্টেন্সিং দরকার, তার আরও একটা বড় কারণ প্রকাশ করল মার্কিন বৈজ্ঞানিকরা। কোনও করোনা আক্রান্ত রোগীর কাছে এলেই আপনার করোনাভাইরাস হতে পারে। এই কোভিড ভাইরাস কেবল নিশ্বাস নেওয়া, কথা বলার মাধ্যমে ছড়ায় বলে বিশ্বাস এই উচ্চ-পর্যায়ের প্যানেলে। এই হাওয়াবাহিত ভাইরাস আগে যেভাবে ছড়ায় বলে মনে করা হচ্ছিল, তার থেকেও সহজে সংক্রমণ হয়ে বলেই বিজ্ঞানীদের দাবি। সারা দুনিয়ায় প্রায় ৬০ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে মারা গিয়েছেন।

বিজ্ঞানীরা বলছেন যে মানুষ যখন নিশ্বাস ছাড়ে তখন ভাইরাস হাওয়ার ভেসে থাকে। National Academies of Sciences, Engineering, and Medicine’s standing committee of experts-এর প্রধান ডাক্তার হার্ভি ফাইনবার্গ মার্কিন প্রশাসনকে তাদের এই গবেষণার কথা জানিয়েছেন।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভাইরোলজিস্ট বলেছেন যে ভাইরাসের এত দ্রুত বৃদ্ধির এটা সম্ভাব্য কারণ হতে পারে। এর জন্যে লকডাউন এতটা প্রয়োজনীয়। ভারতে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জায়গায় ক্লাস্টারে করোনা ছড়িয়েছে। প্রায় ৩০০০ জন করোনায় আক্রান্ত, মারা গিয়েছেন ৬৮জন।

এখনও পর্যন্ত সবাই মনে করছিল যে কেবল হাঁচি, কাশি থেকে করোনা ছড়ায় রেসপিরেটরি ড্রপলেট থেকে। কিন্তু নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিনের স্টাডি প্রথম এই থিওরিকে চ্যালেঞ্জ করে। তারা বলে এই ভাইরাস হাওয়ায় ভেসে থাকে তিন ঘণ্টা অবধি। এরপর WHO জানায় কোনও বিশেষ ক্ষেত্রে aerosol transmission হতে পারে, কিন্তু চিনে এমন কোনও কেস দেখা যায়নি।

University of Nebraska Medical Center-এর গবেষণায় উঠে এসেছিল aerosol transmission সম্ভব। এই বিষয়ে যদিও এখন নিশ্চিত ভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়। তবে একটা বিষয় খুব স্পষ্ট, চুপচাপ বাড়িতে বসে থাকাই এখন করোনার হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার সেরা পন্থা।


বন্ধ করুন