সোমবার ভোরে হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়েছেন দুবাই থেকে আসা ওই ব্যক্তি। (প্রতীকী ছবিটি রয়টার্সের সৌজন্যে সংগৃহী, আলোকচিত্রী মার্জিও তোনিওলো)। (via REUTERS)
সোমবার ভোরে হাসপাতাল ছেড়ে পালিয়েছেন দুবাই থেকে আসা ওই ব্যক্তি। (প্রতীকী ছবিটি রয়টার্সের সৌজন্যে সংগৃহী, আলোকচিত্রী মার্জিও তোনিওলো)। (via REUTERS)

Coronavirus crisis: স্বাস্থ্যপরীক্ষায় আপত্তি, হাসপাতাল থেকে উধাও দুবাইফেরত যুবক

যুবককে ছেড়ে দেওয়ার দাবিতে রাতে বিমনানবন্দরের কর্মীদের উপরে চড়াও হন তাঁর সঙ্গী আত্মীয়রা। কোনও যুক্তি শুনতে রাজি না হয়ে তাঁরা কর্মীদের সঙ্গে বচসা শুরু করেন।

করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ম্যাঙ্গালুরু বিমানবন্দর থেকে আটক করা হয়েছিল দুবাইফেরত এক ব্যক্তিকে। সোমবার ভোরে তিনি হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

বিমানবন্দরের কর্মীরা জানিয়েছেন, রবিবার রাতে দুবাই থেকে সপরিবারে ম্যাঙ্গালুরু বিমানবন্দরে এসে নামেন আজহারউদ্দিন নামে বছর পঁয়ত্রিশের ওই যুবক। তাঁর শরীরে প্রবল জ্বর দেখা দেওয়ায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এরপর করোনাভাইরাস সংক্রান্ত পরীক্ষার জন্য তাঁকে স্থানীয় ওয়েনলক হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে পাঠানো হয়।

অভিযোগ, যুবককে ছেড়ে দেওয়ার দাবিতে রাতে বিমনানবন্দরের কর্মীদের উপরে চড়াও হন তাঁর সঙ্গী আত্মীয়রা। কোনও যুক্তি শুনতে রাজি না হয়ে তাঁরা কর্মীদের সঙ্গে বচসা শুরু করেন। তবে Covid-19 আতঙ্কের জেরে তাঁকে ছাড়া হবে না বলে জানিয়ে দেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

এ দিন ভোরে নজরদারিতে থাকা ওই ব্যক্তি হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ম্যাঙ্গালুরু জেলা স্বাস্থ্য উন্নয়ন দফতরের আধিকারিক সিকান্দর পাশা ফোনে হিন্দুস্তান টাইমস-কে জানিয়েছেন, ‘সোমবার রাত ৮টায় দুবাই থেকে আসা বিমানে ম্যাঙ্গালুরু বিমানবন্দরে পৌঁছন বছর পঁয়ত্রিশের আজহারউদ্দিন। বিমানবন্দরে পরীক্ষায় শ্বাসকষ্টের সঙ্গে তাঁর শরীরের উত্তাপ বাড়তে দেখা গেলে ওয়েনলক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি কাউকে কিছু না জানিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে চলে গিয়েছেন। আমাদের কাছে ওঁর সম্পর্কে সমস্ত তথ্য রয়েছে এবং তাঁকে হাসপাতালে আরও পরীক্ষার জন্য ফিরিয়ে আনতে পান্ডেশ্বর পুলিশের সাহায্য চাওয়া হয়েছে।’

ইতিমধ্যে কর্নাটক সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, রাজ্যে এখনও পর্যন্ত Covid-19 আক্রান্ত রোগীর দেখা পাওয়া যায়নি। তবে ৮৯০ জনকে আপাতত নজরে রাখা হয়েছে।

বন্ধ করুন