জনমানবশূন্য ইতালি (ছবি সৌজন্য এপি)
জনমানবশূন্য ইতালি (ছবি সৌজন্য এপি)

উহানের থেকেও একদিনে বেশি মৃত্যু ইতালিতে, ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা বাড়ল ৩৬৮

  • সবথেকে অবস্থা খারাপ মিলানের লোমবার্ডির। গত তিন সপ্তাহে শুধু লোমবার্ডিতেই করোনার জেরে ১,২১৮ জনের মত্যু হয়েছে।

করোনাভাইরাসে প্রকোপে পুরোপুরি বিপর্যস্ত ইতালি। মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। রবিবার পর্যন্ত ১,৮০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন : করোনা উদ্বেগে অব্যাহত বাজারে পতন

চিনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাসের দাপট শুরু হলেও ক্রমশ তা বিশ্বের একাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইতালির। প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। রোমে ইতালির সিভিল প্রোটেকশন ডিপার্টমেন্টের প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোর্রেল্লি জানান, রবিবার পর্যন্ত সেদেশে ২৪,৭৪৭ জনের দেহে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩,৫৯০ জনের শরীরের নমুনা পজিটিভ এসেছে।

আরও পড়ুন : Covid-19 Crisis: করোনা মোকাবিলায় আপৎকালীন ফান্ডের প্রস্তাব মোদীর, ১ কোটি মার্কিন ডলার দেবে ভারত

একইসঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। যে হারে রোজ মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে, তা প্রশাসনের কাছে সবথেকে বড় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। রবিরারই শুধুমাত্র ৩৬৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। একদিনে সর্বাধিক মৃত্যুর নিরিখে যা করোনার উৎসস্থল উহানের থেকেও বেশি। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি চিনে ২৫৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

আরও পড়ুন : Covid-19 update: পুরভোট পিছোনোর জল্পনার মাঝেই করোনাকে কেয়ার না করে প্রচার

এদিকে, আগামী ৫ এপ্রিল থেকে ইস্টার সপ্তাহ পালন করা হত। বড় জমায়েত এড়াতে তা বাতিল করে দিয়েছে ভ্যাটিকান। ইতালির অধিকাংশ রাস্তায কার্যত জনমানবহীন হয়ে গিয়েছে। খাঁ খাঁ করছে বিস্তীর্ণ এলাকা। কালেভদ্রে রাস্তায় দু'একজনকে দেখা যাচ্ছে। বেশিরভাগ মানুষই ঘরবন্দি হয়ে রয়েছেন।

আরও পড়ুন : দুবাইগামী বিমানে Covid-19 আক্রান্ত ব্রিটিশ পর্যটক, কোচিতে বাতিল উড়ান

সবথেকে অবস্থা খারাপ মিলানের লোমবার্ডির। গত তিন সপ্তাহে শুধু লোমবার্ডিতেই করোনার জেরে ১,২১৮ জনের মত্যু হয়েছে। যা সমগ্র ইউরোপের মৃতের সংখ্যা থেকেও বেশি। করোনার দাপট রুখতে একাধিক পদক্ষেপ করেছে প্রশাসন। দিনরাত এক করে পরিষেবা দিচ্ছেন চিকিৎসা-নার্সরা। তার ফলে তাঁদের কতটা ধকল যাচ্ছে, তা একাধিক ছবিতেও উঠে যাচ্ছে। কিন্তু, তাঁদের শত চেষ্টা সত্ত্বেও আশার আলো দেখতে পারছে না ইতালির আর্থিক রাজধানী। বরং আগামী দিনে লোমবার্ডির পরিস্থিতির আরও খারাপ বলে জানিয়েছেন সেখানকার গভর্নর অ্যাত্তিলিও ফন্টানা। তিনি বলেন, 'আমরা এমন সেই জায়গাটার কাছে ক্রমশ পৌঁছাচ্ছি, যখন আমরা মানুষকে সুস্থ করতে পারব না কারণ আমাদের কাছে আর কোনও ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটের বেড পড়ে থাকবে না।' তিনি জানান, চিকিৎসার যন্ত্রপাতি প্রয়োজন। কিন্তু, দেশজুড়ে চিকিৎসার যন্ত্রপাতিতে আকাল পড়েছে।

বন্ধ করুন