বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'দেহের ময়নাতদন্ত বা দাহ নয়', ফেসবুকে স্টেটাস দিয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ যুগলের
'দেহের ময়নাতদন্ত বা দাহ নয়', ফেসবুকে স্টেটাস দিয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ যুগলের। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
'দেহের ময়নাতদন্ত বা দাহ নয়', ফেসবুকে স্টেটাস দিয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ যুগলের। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

'দেহের ময়নাতদন্ত বা দাহ নয়', ফেসবুকে স্টেটাস দিয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ যুগলের

  • ফেসবুক এবং হোয়্যাটসঅ্যাপ স্টেটাসে এরকম সুইসাইড নোট লিখে গঙ্গায় ঝাঁপ দিলেন প্রেমিক-প্রেমিকা।

‘আমাদের দেহের যেন ময়নাতদন্ত না করা হয় বা মণিকর্ণিকায় দাহ না করা হয়।’ ফেসবুক এবং হোয়্যাটসঅ্যাপ স্টেটাসে এরকম সুইসাইড নোট লিখে গঙ্গায় ঝাঁপ দিলেন প্রেমিক-প্রেমিকা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের খোঁজ মেলেনি। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটার কিছুটা পর বাইকে করে রাজঘাট গঙ্গা সেতুর উপর আসেন এক যুবক এবং যুবতী। একেবারে রাস্তায় ধারে বাইক দাঁড় করানো হয়। কিছুক্ষণ দু'জনে কথা বলতে থাকেন। ঝগড়াও করেন। তারপর সেতুর রেলিংয়ে উঠে যান। সেখান থেকে একে অপরের হাত ধরে গঙ্গায় ঝাঁপ দেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

ঝাঁপ দেওয়ার বিষয়টি নজরে আসতেই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাইকের নম্বর ধরে ওই যুবক এবং যুবতীর পরিচয় জানতে পারে পুলিশ। যুবক একটি ব্রডব্যান্ডে কোম্পানিতে কাজ করতেন। জানা যায়, গঙ্গায় ঝাঁপ দেওয়ার কিছুক্ষণ আগে ইংরেজিতে ফেসবুক এবং হোয়্যাটসঅ্যাপ স্টেটাসে সুইসাইড লিখেছিলেন যুবক। তাতে লেখা ছিল, নিজেদের ইচ্ছায় প্রেমিকার সঙ্গে আত্মহত্যা করতে চলেছেন। ‘আমাদের মৃত্যুর পর কেউ যেন আমাদের পরিবারকে বিরক্ত না করে। আমাদের দেহের যেন ময়নাতদন্ত না করা হয় বা মণিকর্ণিকায় দাহ না করা হয়। ’ সেইসঙ্গে মায়ের উদ্দেশেও সুইসাইড নোটে বার্তা লিখেছেন ওই যুবক।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই যুবক এবং যুবতী প্রেম করতেন। তাঁরা বিয়ে করতে চেয়েছিলেন। কিন্ত পরিবারের তরফে সেই সম্পর্ক মেনে নেওয়া হয়নি। তা নিয়েই দু'জন হতাশ হয়ে পড়েছিলেন বলে পুলিশ দাবি করেছে।

বন্ধ করুন