বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অর্ণবের ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন, নিগ্রহের আর্জি খারিজ আদালতের
মু্ম্বইয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে অর্ণবকে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
মু্ম্বইয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে অর্ণবকে। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

অর্ণবের ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন, নিগ্রহের আর্জি খারিজ আদালতের

  • পুলিশের বিরুদ্ধে নিগ্রহের অভিযোগ তুলেছিলেন অর্ণব গোস্বামী।

পুলিশের বিরুদ্ধে নিগ্রহের অভিযোগ তুলেছিলেন অর্ণব গোস্বামী। কিন্তু সেই অভিযোগ খারিজ করে দিল আলিবাগের আদালত। এদিকে, আপাতত অর্ণবকে ১৪ দিন নিজেদের হেফাজত চেয়ে আবেদন জানিয়েছে আলিবাগ পুলিশ।

দু'বছরের পুরনো আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার একটি মামলায় বুধবার সকালে লোয়ার পারেলে অর্ণবের বাড়িতে যায় পুলিশের একটি দল। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। পরে অর্ণব দাবি করেন, তাঁকে শারীরিক নিগ্রহ করেছে পুলিশ। রেহাই পাননি তাঁর স্ত্রী, ছেলেও। তবে অর্ণবের অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে পুলিশ।

২০১৮ সালের মে'তে আত্মহত্যা করেছিলেন ৫৩ বছরের ইন্টিরিয়র ডিজাইনার অন্বয় নায়েক এবং তাঁর মা কুমুদ নায়েক। আলিবাগে কবীর গ্রামের বাড়ি থেকে তাঁদের দেহ উদ্ধার করা হয়েছিল। সেই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন অন্বয়ের স্ত্রী অক্ষতা (৪৮)। তারইমধ্যে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছিল পুলিশ। তাতে অভিযোগ করা হয়েছিল, অর্ণব গোস্বামী, ফিরোজ শেখ এবং নীতেশ সারদার থেকে ৫.৪ কোটি টাকা পেতেন অন্বয়। কিন্তু তা দেওয়া হয়নি। সেজন্য আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন। পরে অর্ণব, ফিরোজ ও নীতিশের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার মামলা রুজু করেছিল পুলিশ।

তবে গত বছর সেই মামলা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। পুলিশ জানিয়েছিল, যে তিনজনের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে, তাঁদের বিরুদ্ধে জোরালো কোনও প্রমাণ মেলেনি। পরে আলিবাগ পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তে গাফিলতির অভিযোগ তুলে মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের দ্বারস্থ হয়েছিলেন অন্বয়ের মেয়ে আদনিয়া। তারপর চলতি বছরের মে'তে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, অন্বয় ও তাঁর মা'র মৃত্যুর ঘটনায় নতুন করে তদন্ত শুরু হবে।

বন্ধ করুন