ডাউনিং স্ট্রিটের বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে সোমবার ভাষণ দিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস, জনসন। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)
ডাউনিং স্ট্রিটের বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে সোমবার ভাষণ দিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস, জনসন। ছবি: রয়টার্স। (REUTERS)

মহামারী ফেরার আশঙ্কায় লকডাউন উঠছে না ব্রিটেনে, কাজে যোগ দিয়ে ঘোষণা জনসনের

  • সরকার আরোপিত নিষেধাজ্ঞায় ঢিলেমি দিলে সংক্রমণের দ্বিতীয় পর্ব দ্রুত ফিরে আসতে পারে ব্রিটেনে, জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

আরও বেশ কয়েক সপ্তাহ জারি থাকবে লকডাউন। করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে দফতরে যোগ দিয়ে এই ঘোষণা করলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

সোমবার ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের বাইরে স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় জাতির উদ্দেশে ভষনে জনসন বলেন, করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি ঘটেছে ব্রিটেনের। চূড়ান্ত সমস্যার পর্ব অতিক্রম হয়েছে বলেও তিনি জানান।

তবে একই সঙ্গে জনসন জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি আশঙ্কাপূর্ণ পরিস্থিতি রয়েছে ব্রিটেনে। সরকার আরোপিত নিষেধাজ্ঞায় ঢিলেমি দিলে সংক্রমণের দ্বিতীয় পর্ব দ্রুত ফিরে আসতে পারে বলেও তিনি সতর্ক করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, লকডাউন কবলিত মানুষ অধৈর্য ও উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন, তা তিনি বিলক্ষণ বুঝতে পারছেন। দীর্ঘমেয়াদী লকডাউনের ফলে দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিও আশঙ্কাজনক হয়ে উঠেছে বলে তিনি জানান।



আরও পড়ুন: সোমবার কাজে যোগ দিচ্ছেন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা বরিস জনসন


এ হেন পরিস্থিতিতে জনসন জানিয়েছেন, মহামারী থেকে রক্ষা পেতে আপাতত লকডাউন তোলার বিষয়ে চিন্তা করা সম্ভব হচ্ছে না প্রশাসনের।

উল্লেখ্য গত ২৩ মার্চ থেকে ব্রিটেনে লকডাউন ঘোষণা করেছে জনসনের সরকার। নিষেধাজ্ঞা জারি করে বন্ধ রাখা হয়েছে অত্যাবশ্যক ছাড়া সমস্ত পণ্যের উৎপাদন ও বিক্রি। সেই সঙ্গে বন্ধ রাখা হয়েছে খেলার মাঠ, স্টেডিয়াম, গ্রন্থাগার, প্রেক্ষাগৃহ ইত্যাদি। সামাজিক দূরত্ব বিধি-সহ বেশ কিছু কড়াকড়ি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে।

সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে জানা গিয়েছে, ব্রিটেনে এখনও পর্যন্ত ১,৫৩,০০০ এর বেশি মানুষ Covid-19 আক্রান্ত হয়েছেন এবং সংক্রমণে মারা গিয়েছেন মোট ২০,০০০ এর বেশি নাগরিক।

বন্ধ করুন