বাড়ি > ঘরে বাইরে > পটনায় আত্মঘাতী করোনা রোগী, কয়েক ঘণ্টা পরেই মিলল নেগেটিভ রিপোর্ট
সোমবার সন্ধ্যায় আত্মঘাতী হলেন পটনা এইমস হাসপাতালের এক কোভিড রোগী।
সোমবার সন্ধ্যায় আত্মঘাতী হলেন পটনা এইমস হাসপাতালের এক কোভিড রোগী।

পটনায় আত্মঘাতী করোনা রোগী, কয়েক ঘণ্টা পরেই মিলল নেগেটিভ রিপোর্ট

  • সোমবার পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টা আগেই তিনি মারা যান।

করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল বেরোনোর মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে সোমবার সন্ধ্যায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হলেন পটনা এইমস হাসপাতালের এক কোভিড রোগী। 

এইমস পটনা হাসপাতালের নোডাল অফিসার চিকিৎসক সঞ্জীব কুমার জানিয়েছেন, ‘গত ১৫ জুন ওই রোগীকে ভরতি করা হয়। পরীক্ষায় তাঁর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। তবে সোমবার ফের পরীক্ষা করা হলে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টা আগেই তিনি মারা যান।’

তিনি আরও জানান, ‘ওই রোগীকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছিল। পাশের একটি ঘরে ঢকে তিনি দরজার ছিটকিনি তুলে দেন। তার পর ঘরের সিলিং ফ্যানে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন। পুলিশ তাঁর দেহ হেফাজতে নিয়েছে।’

বিহারে এই প্রথম সরকারি হাসপাতালে ভরতি কোনও করোনা রোগী আত্মঘাতী হলেন। 

সোমবার নতুন ১৪৩ জন করোনা রোগীর খোঁজ পাওয়া গিয়েছে বিহারে। রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আপাতত ৭,৮০৮, মৃত্যু ৫২টি। 

এ দিন পটনায় করোনা পজিটিভ রোগীদের মধ্যে আছেন পটনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের  পাঁচ চিকিৎসক, একজন এমবিবিএস ইন্টার্ন এবং এক নার্স। এ ছাড়াও শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছেন। 

এ দিন বিহারের পাঁচটি জেলা থেকেও করোনা সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। এর মধ্যে মধুবনি জেলায় ২৩ জন, সহর্ষতে ১৮ জন, দ্বারভাঙায় ১৭ জন, পটনা ও সমস্তিপুরে ১৬ জন করে, , কিষাণগঞ্চে ১১ জন, বৈশালী, সুপল, সিওয়ান ও ভাগলপুরের প্রতি জেলায় ৫ জন করে, বক্সার ও মাধেপুরায় ৪ জন করে, ভোজপুর ও সারন জেলায় ২ জন করে এবং অওরঙ্গাবাদ, বাঁকা, গোপালগঞ্জ, জামুই, জেহানাবাদ, কাটিহার, লক্ষ্মীসরাই, মুজফ্ফরপুর, নালন্দা ও শেখপুরা থেকে একজন করে রোগীর খবর পাওয়া গিয়েছে। 

তালিকায় মোট ৪২৬ জন আক্রান্ত নিয়ে শীর্ষে রয়েছে পটনা। তার পরে রয়েছে মধুবনি (৩৭৫, ভাগলপুর (৩৬৭), বেগুসরাই (৩৪৭) এবং সিওয়ান (৩২৪)। 

বন্ধ করুন