ছাউনিতে পরিযায়ী শ্রমিকরা (ছবি সৌজন্য এএনআই)
ছাউনিতে পরিযায়ী শ্রমিকরা (ছবি সৌজন্য এএনআই)

কোনও পরিযায়ী শ্রমিক রাস্তায় নেই, সুপ্রিম কোর্টে জানাল কেন্দ্র

কেন্দ্র জানায়, করোনার মোকাবিলায় গত ৭ জানুয়ারি থেকে প্রস্তুতি শুরু হয়েছিল।

লকডাউন ঘোষণার পর বাড়িমুখী রাস্তা ধরেছিলেন হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক। তবে এখন আর কেউ রাস্তায় নেই। সুপ্রিম কোর্টে একথা জানাল কেন্দ্র।

আরও পড়ুন : করোনা সংকটে সরকারি কর্মীদের বেতন ছাঁটাই মহারাষ্ট্রে, রেহাই 'গ্রুপ ডি' কর্মীদের

পরিযায়ী শ্রমিক সংক্রান্ত পিটিশনে শুনানিতে মঙ্গলবার পরিযায়ী শ্রমিকদের খাদ্য, জল, বিছানা, ওষুধ ও ছাউনিতে কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করার জন্য কেন্দ্রকে নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

আরও পড়ুন : Covid-19 হেল্পলাইনে প্রতিবেশীর নিয়ম ভাঙার তথ্য দিয়ে গণপ্রহারে মৃত্যু যুবকের

সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জানান, ইতিমধ্যে শ্রমিকদের ছাউনির বন্দোবস্ত হয়ে গিয়েছে। তিনি বলেন, 'আমায় জানাতে বলা হয়েছে যে কেউ (পরিযায়ী শ্রমিক) রাস্তায় নেই। যাঁরা বাইরে ছিলেন, তাঁদের কাছাকাছি কোনও ছাউনিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।'

আরও পড়ুন : লকডাউনে মেয়েদের রান্নাঘরে আটকে রাখবেন না, রাজ্যবাসীকে আর্জি নবীনের

সোমবারের শুনানিতে যে রিপোর্ট তলব করেছিল সুপ্রিম কোর্ট, মঙ্গলবার তা হলফনামা আকারে পেশ করে কেন্দ্র। তাতে জানানো হয়েছে, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গত ৭ জানুয়ারি থেকে প্রস্তুতি শুরু করেছিল কেন্দ্র। তখন রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিবদের হাসপাতাল তৈরি রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব। পাশাপাশি হলফনামায় দাবি করা হয়, করোনা মোকাবিলায় প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তর থেকে পুরো বিষয়টির উপর নজর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুন : Bengal Government Salary Update: রাজ্য সরকারি কর্মীরা এক মাসের বেতন অগ্রিম নিতে পারেন, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

করোনা পরিস্থিতিতে যেভাবে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ছে, তা নিয়ে মঙ্গলবার উদ্বেগ প্রকাশ করে। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করে কেন্দ্র জানায়, ভুয়ো খবরের ফলে মানুষের মনে আতঙ্ক তৈরি হচ্ছে। সেজন্য ভুয়ো খবর মোকাবিলায় একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয় প্রধান বিচারপতি এস বোবদের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। করোনা সংক্রান্ত আমজনতার যে কোনও প্রশ্নের উত্তর দেবে সেই কমিটি। একইসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যেভাবে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ছে, তা রোখার উপর গুরুত্ব আরোপ করে শীর্ষ আদালত। সেজন্য যাঁরা ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার সবুজ সংকেত দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ।

বন্ধ করুন