লকডাউনের সময় একটি এলাকায় রুটমার্চ মুম্বই পুলিশের (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
লকডাউনের সময় একটি এলাকায় রুটমার্চ মুম্বই পুলিশের (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

Covid-19 Updates: করোনার কবলে মুম্বই পুলিশের কমপক্ষে ৩৯ কর্মী, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২ জনের

  • মহারাষ্ট্র পুলিশের বিভিন্ন বিভাগের মধ্যে মুম্বই পুলিশের সবথেকে বেশি কর্মী করোনার কবলে পড়েছেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল মুম্বই পুলিশের আরও এক কর্মীর। বছর ৫২-র ওই পুলিশকর্মী প্রোটেকশন ব্র্যাঞ্চে কর্মরত ছিলেন।

আরও পড়ুন : Covid-19 Updates: ভাসমান ধূলিকণার সঙ্গে মিশতে পারে করোনাভাইরাস

রবিবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ একটি টুইটবার্তায় মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনার পরমবীর সিং বলেন, 'মুম্বই পুলিশ অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে হেড কনস্টেবল সন্দীপ সুরভের মৃত্যুর খবর জানাচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে তিনি করোনার বিরুদ্ধে লড়ছিলেন। তাঁর পরিবার ও প্রিয়জনদের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাচ্ছি।'

আরও পড়ুন : COVID-19 Updates: ডায়াবিটিস আছে? করোনার প্রকোপের মধ্যে কী করবেন, জেনে নিন চিকিৎসকের পরামর্শ

পুলিশের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানান, তিন বছর আগে ক্যানসার হয়েছিল সন্দীপের। ২০১৭ সালে তাঁর চিকিৎসা হয়েছিল। করোনা পরিস্থিতিতে নভি মুম্বইয়ের বাড়ি থেকে দক্ষিণ মুম্বইয়ের অফিসে তিনি বাসে করে আসতেন। এরইমধ্যে এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে গত ২৩ এপ্রিল হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। এরপর রবিবার সকাল সাড়ে সাতটার সময় তাঁর মৃত্যু হয়। তবে তিনি কীভাবে সংক্রামিত হয়েছেন, তা এখনও জানা যায়নি।

আরও পড়ুন :করোনার চিকিৎসায় প্লাজমা দানে রাজি সুস্থ হয়ে ওঠা তবলিঘি জামাত সদস্যরা

শনিবার আরও এক করোনা আক্রান্ত পুলিশকর্মীর মৃত্য়ু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, বছর ৫৭-র ওই হেড কনস্টেবল চন্দ্রকান্ত গণপত পেন্দুরকার ওরলি নাকার বাসিন্দা ছিলেন। কয়েকদিন আগে তিনি অসুস্থ বোধ করছিলেন। করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল। গত ২২ এপ্রিল তাঁকে বিওয়াইএল নায়ার হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখানে শনিবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়।

পাশাপাশি আরও প্রায় ৩৯ জন পুলিশকর্মীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন মুম্বই পুলিশের মুখপাত্র ও ডিসিপি (অপারেশন) প্রণয়া অশোক। বিভিন্ন হাসপাতালে তাঁদের চিকিৎসা চলছে। মহারাষ্ট্র পুলিশের বিভিন্ন বিভাগের মধ্যে মুম্বই পুলিশের সবথেকে বেশি কর্মী করোনার কবলে পড়েছেন। সেজন্য সংক্রামক এলাকাগুলিতে বয়স্ক ও শারীরিকভাবে দুর্বল পুলিশকর্মীদের মোতায়েন করার বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখপাত্র।

বন্ধ করুন