চিনে প্লাজমা দিচ্ছেন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগী (ছবি সৌজন্য এএফপি)
চিনে প্লাজমা দিচ্ছেন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগী (ছবি সৌজন্য এএফপি)

Covid-19 Updates: প্লাজমা থেরাপিতে কি করোনা মুক্তি? দিল্লিতে প্রায় সুস্থ গুরুতর চার রোগী

  • রাজস্থানেও প্লাজমা থেরাপির ব্যবহারের তোড়জোড় চলছে।

করোনাভাইরাস চিকিৎসায় কি নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হল? বিশেষজ্ঞরা স্পষ্টভাবে কিছু না জানালেও এখনও পর্যন্ত প্লাজমা থেরাপিতে ভারতে কয়েকজন করোনাভাইরাস আক্রান্তের শারীরিক অবস্থার অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে।

আরও পড়ুন : 'বাজে খরচ না কমিয়ে মধ্যবিত্তের ভাঁড়ারে টান'- DA বৃদ্ধি প্রত্যাহারে সরব মনমোহন, রাহুল

সম্প্রতি দিল্লির সাকেতের একটি বেসরকারি হাসপাতাল করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির প্রয়োগ করেছিল। তারপর ওই ব্যক্তিকে ভেন্টিলেটর থেকে বের করে আনা হয়েছিল। তাঁর পরপর দুটি করোনা রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছিল। তারপর রাজধানীর আরও কয়েকজন করোনা আক্রান্তের চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগ করা হয়েছে। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দর জৈন বলেন, 'দিল্লিতে ছ'জন করোনা আক্রান্তের ক্ষেত্রে প্লাজমা থেরাপি ব্যবহার করা হয়েছে। চারদিন আগে চারজনের ক্ষেত্রে সেই থেরাপি ব্যবহার করা হয়েছিল। ওই চারজন প্রায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাঁদের প্রত্যেকেরই অবস্থা জটিল ছিল। আর সেই ফলাফল অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক।'

আরও পড়ুন : ছুটে আসছে 'মাস্ক পরা' উল্কা! প্রভাব পড়তে পারে পৃথিবীতে, বলছে নাসা

পাশাপাশি, দিল্লির এইমস ও ইনস্টিটিউট অফ লিভার অ্যান্ড বিলিয়ারি সায়েন্সে পরীক্ষামূলকভাবে প্লাজমা থেরাপি শুরু হয়েছে। তার আগেই অবশ্য সেই পরীক্ষা শুরু করেছে কেরালার শ্রী চিত্রা তিরুনাল ইনস্টিটিউট ফর মেডিক্যাল সায়েন্স ও টেকনোলজির বায়োটেকনোলজি বিভাগ। যা দেশের মধ্যে প্রথম। এছাড়াও শুক্রবার থেকে লখনউয়ের কিং জর্জ মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় এবং শনিবার থেকে কর্নাটকের একটি হাসপাতালেও প্লাজমা থেরাপির ট্রায়াল শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন : Covid-19 Updates: যত সমস্যা বাংলার, কিটের অভাব নেই রাজ্যে : ICMR

এদিকে, রাজস্থানের এসএমএস হাসপাতালে গুরুতর করোনা আক্রান্তের ক্ষেত্রে প্লাজমা থেরাপি প্রয়োগের তোড়জোড় চলছে। ট্রায়াল শুরুর জন্য ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের (আইসিএমআর) কাছ থেকে অনুমতি চাওয়া হয়েছে। এসএমএস হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্ক ইনচার্জ সুনীতা বুনদাস বলেন, 'প্রতিষেধক বা অ্যান্টিভাইরালের অনুপস্থিতিতে জটিল করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসায় এটি কার্যকরী প্রমাণ হতে পারে এবং মৃত্যুর হার কমতে পারে।'

আরও পড়ুন : Covid-19 Updates: নথিভুক্ত মৃত্যুর থেকে করোনার বলি অনেক বেশি হতে পারে : রিপোর্ট

এসএমএস হাসপাতালের মেডিসিনের অধ্যাপক রমন শর্মা জানান, ১৯১৮ সালে স্প্যানিশ ফ্লুয়ের সময় প্লাজমা থেরাপির প্রয়োগ করা হয়েছিল। ফলে মৃত্যুর হার ২০ শতাংশ কমেছিল। তবে সুনীতা জানান, করোনা রোগীর ক্ষেত্রে ইতিবাচক ইঙ্গিত মিললেও তা এখনও ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। ফলে এখনই বলা যাবে না যে প্লাজমা থেরাপির মাধ্যমে করোনা সারিয়ে তোলা যাবে। তাঁর কথায়, 'থেরাপিটি এখনও ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। তা করোনা রোগীদের সুস্থ করে তুলবে কিনা, তা এখনই (নিশ্চিতভাবে) বলা যাবে না। তবে এই থেরাপিতে আশাব্যঞ্জক ফলাফল দেখা গিয়েছে।'

বন্ধ করুন