বাড়ি > ঘরে বাইরে > করোনা রোগীদের রোজ বেড ভাড়া ২৫,০০০-৭২,৫০০, ভাইরাল ছবির সত্যতা কার্যত স্বীকার হাসপাতালের
করোনা রোগীদের রোজ বেড ভাড়া ২৫,০০০-৭২,৫০০ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
করোনা রোগীদের রোজ বেড ভাড়া ২৫,০০০-৭২,৫০০ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

করোনা রোগীদের রোজ বেড ভাড়া ২৫,০০০-৭২,৫০০, ভাইরাল ছবির সত্যতা কার্যত স্বীকার হাসপাতালের

সেই ছবি সামনে আসার পর রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন নেটিজেনরা।

প্রতিদিন ২৫,০০০ টাকা থেকে ৭২,০০০ টাকা - সাধারণ ওয়ার্ড, ভেন্টিলেটর, আইসোলেশন বেডের ভিত্তিতে গুনতে হচ্ছে সেই ভাড়া। সঙ্গে ওষুধ, পরীক্ষা-সহ কার্যত যাবতীয় কাজের জন্য গ্যাঁটের কড়ি খসাতে হবে। আর সেই পরিমাণ অর্থ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল। আর সেই অভিযোগ অস্বীকার করল না বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতাল।

গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় গুরুগ্রামের ম্যাক্স হাসপাতালের একটি ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। তাতে করোনা রোগীদের জন্য বিভিন্ন প্যাকেজ ঠিক করা হয়। কেনও রোগী জেনারেল ওয়ার্ডে থাকলে প্রতিদিন তাঁকে ২৫,০৯০ টাকা গুনতে হবে। ভেন্টিলেটর ছাড়া আইসিইউতে থাকার প্যাকেজের প্রতিদিন মূল্য ৫৩,০৫০ টাকা। ভেন্টিলেটর দিলে তা বেড়ে দাঁড়াবে ৭২,৫৫০। এটা তো গেল শুধু থাকার খরচ। সঙ্গে যুক্ত হবে ওষুধ, অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা, করোনা বা অন্যান্য টেস্ট, কো-মর্বিডিটি চিকিৎসার খরচ। পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুপমেন্টের (পিপিই) জন্য়ও আলাদা টাকা দিতে হবে।

সেই ছবি সামনে আসার পর রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন নেটিজেনরা। কেউ কেউ মন্তব্য করেন, করোনার মতো পরিস্থিতিতে চূড়ান্ত নোংরা মানসিকতার পরিচয় দিচ্ছে ম্যাক্স। অনেকে বলেন, ‘লুঠের মানে এটাই’। এক নেটিজেন বলেন, 'আপনাদের হাসপাতালে কি সোনার শয্যা আছে নাকি ১০০ শতাংশ সফল চিকিৎসা হয়?' আরও কড়া সুরে এক নেটিজেন বলেন, 'আপনারা চিকিৎসক নন, কসাই।' বেসরকারি হাসপাতালের সেই ‘লুঠতরাজ’ বন্ধের জন্য সরকারকে করোনা চিকিৎসার খরচের ক্ষেত্রে উর্ধ্বসীমা বেঁধে দেওয়ার আর্জি জানান।

বিতর্কের মুখে পড়ে শুক্রবার কিছুটা সাফাই দেওয়া হয় ম্যাক্সের তরফে। একটি টুইটবার্তায় বলা হয়, ‘ম্যাক্স প্রতাপগড়ের (কয়েকটি টুইটে সেটা বলা হচ্ছে ম্যাক্স গুড়গাঁও) করোনা চিকিৎসার খরচ সংক্রান্ত একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু সেটায় রুটিন পরীক্ষা, রুটিন ওষুধ, চিকিৎসক এবং নার্সদের ফি-সহ সকল বিষয় অন্তর্ভুক্ত হয়।’ অর্থাৎ তাদের হাসপাতালে যে কার্যত রোগীদের থেকে অত্যধিক হারে টাকা নেওয়া হচ্ছে, তা ম্যাক্স স্বীকার করে নিয়েছে বলে মত নেটিজেনদের।

বন্ধ করুন