বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'শরিয়ত আইনের অনুমোদন আছে', কোভিড টিকাকে 'হালাল' সার্টিফিকেট দিয়ে বিতর্কে WHO
ছবি : ব্লুমবার্গ (Bloomberg)
ছবি : ব্লুমবার্গ (Bloomberg)

'শরিয়ত আইনের অনুমোদন আছে', কোভিড টিকাকে 'হালাল' সার্টিফিকেট দিয়ে বিতর্কে WHO

  • বিশ্বের অনেক প্রান্তেই ধর্মীয় কারণে করোনা টিকা নেওয়া থেকে বিরত থাকছেন সাধারণ মানুষ।

বিশ্বের অনেক প্রান্তেই ধর্মীয় কারণে করোনা টিকা নেওয়া থেকে বিরত থাকছেন সাধারণ মানুষ। টিকা নিয়ে রয়েছে ভয়ও। এই পরিস্থিতি করোনা টিকা নিয়ে বিবৃতি প্রকাশ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর সেই বিবৃতিতে করোনা টিকাকে হালাল বলে উল্লেখ করা হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে। শুধু তাই নয়, বলা হয়েছে যে করোনা টিকা শরিয়ত আইন অনুযায়ী অনুমোদিত। গত শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এহেন টুইটে জোর বিতর্ক শুরু হয়।

গত শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলে কোভিড টিকা সংক্রান্ত কয়েকটি টুইট করা হয়। মানুষের মনে থাকা সংশয় এবং বিভ্রান্তি দূর করার উদ্দেশ্যেই এই টুইটগুলি করা হয়েছিল। তবে সেই টুইট ঘিরেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। মেডিকাল ফিক সিম্পোজিয়ামের বরাত দিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে জানান হয় যে শরিয়ত আইনে অনুমোদিত কোভিডের টিকা। পাশাপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্পষ্ট ভাবে জানায় যে কোভিডের এমআরএনএ টিকা মানব দেহের ডিএনএ পাল্টে ফেলে না।

উল্লেখ্য, কোভিড টিকা ধর্মীয় ভাবে গ্রহণযোগ্য কি না বা তা 'হালাল' কি না, তা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ায়। প্রসঙ্গত, শরিয়ত আইন অনুযায়ী ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা যে বস্তু ব্যবহার করতে পারেন, সেগুলিকে হালাল বলে চিহ্নিত করা হয়। এই তালিকায় শূকরের মাংস নেই। তবে করোনা টিকা তৈরির ক্ষেত্রে শূকরের দেহাংশ ব্যবহার করা হচ্ছে বলে বিভঅরান্তি ছড়ায় সেদেশের মানুষদের মধ্যে। এরপরই বিষয়টি নিয়ে সাফ বার্তা দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থআ। জানিয়ে দিল, কোভিড টিকা সম্পূর্ণ 'হালাল'। তবে টিকার মতো বিষয়ে ধর্মের এই হস্তক্ষেপ নিয়ে কিছুটা বিতর্ক শুরু হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে বিতর্ক দূরে সরিয়ে সবাইকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বন্ধ করুন