এই সব ক্ষতিকর প্রোগ্রাম মূলত অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিয়ন্ত্রণ হাতিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে তৈরি করা।
এই সব ক্ষতিকর প্রোগ্রাম মূলত অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিয়ন্ত্রণ হাতিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে তৈরি করা।

লকডাউনে বিপদ বাড়াচ্ছে করোনা অ্যাপ, সতর্ক করলেন গোয়েন্দারা

  • বিশেষজ্ঞরা বলছেন, coronavirus app-এর আড়ালে রয়েছে ক্ষতিকর প্রোগ্রাম।

লকডাউনের জেরে দুশ্চিন্তায় জেরবার সাধারণ মানুষ। এরই মধ্যে উদ্বেগ বাড়াল ‘করোনা অ্যাপ’। সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনলাইনে coronavirus app নামে নানান ক্ষতিকর অ্যাপ ছেড়ে ফাঁদ পেতেছে হ্যাকাররা।

ইজরায়েলের সাইবার সিকিউরিটি সংস্থা চেক পয়েন্ট-এর বিশেষজ্ঞরা বলছেন, coronavirus app-এর আড়ালে রয়েছে ক্ষতিকর প্রোগ্রাম। এই সব ক্ষতিকর প্রোগ্রাম মূলত অ্যান্ড্রয়েড ফোনের নিয়ন্ত্রণ হাতিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে তৈরি করা। চেক পয়েন্ট ইতিমধ্যেই এই ধরনের বেশ কিছু প্রোগ্রাম শনাক্ত করেছে।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাস নিয়ে মানুষ উদ্বেগে রয়েছে। অনলাইনে এই বিষয়ে সার্চ উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। আর এই সুযোগই কাজে লাগাচ্ছে হ্যাকাররা।

করোনা সংক্রান্ত নানান তথ্য পেতে বিভিন্ন অ্যাপের কথা বলা হচ্ছে। স্মার্টফোনে এই ধরনের প্রোগ্রাম ইনস্টল করলেই, হ্যাকারদের হাতে ফোনে থাকা সমস্ত তথ্যের নাগাল চলে যাবে। ব্যবহারকারীর ফোন কল, এসএমএস, ক্যালেন্ডার, ফাইল, কন্ট্যাক্ট, ক্যামেরার নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি তাঁরর অজান্তেই স্মার্টফোনের মাধ্যমে একাধিক কাজ করতে পারবে হ্যাকাররা।

গুগল প্লে স্টোর-এ অবশ্য এই ক্ষতিকর অ্যাপ এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। এসএমএস অথবা হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের মাধ্যমে পাঠানো হচ্ছে নিষিদ্ধ প্রোগ্রামগুলি। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিভিন্ন ডোমেইনে রাখা হচ্ছে অ্যাপগুলি।

চেকপয়েন্ট বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যেই Coronavirus.epic নামে তিনটি অ্যাপের খোঁজ পেয়েছেন। ভুল করে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত তথ্যের অ্যাপ মনে করে তা ডাউনলোড করেলেই অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ইনস্টল হয়ে যায়। তারপরই এর আইকন হারিয়ে যায়। ফলে এটি স্মার্টফোন থেকে মুছে ফেলা কঠিন হয়ে যায়। এটি malware কোডযুক্ত C&C server-এ বার বার যুক্ত হতে থাকে।

চেক পয়েন্ট-এর তথ্য অনুযায়ী, গত কয়েক সপ্তাহে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত ৩০,১০৩টি ডোমেইন চিহ্নিত হয়েছে। এই সব ডোমেইনের মধ্যে ১৩১টি ডোমেইন সরাসরি ক্ষতিকর, ২,৭৭৭টি ডোমেইন সন্দেহজনক।

বন্ধ করুন