বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আমফান ঝড় সবথেকে বেশি সংখ্যক মানুষকে ঘরছাড়া করেছিল: IPPC Report
আমফান ঝড় ২০২০ সালে সবথেকে বেশি সংখ্যক মানুষকে ঘরছাড়া করেছিল। Intergovernmental Panel on Climate Change (IPCC)র রিপোর্ট. (PTI PHOTO.) (HT_PRINT)

আমফান ঝড় সবথেকে বেশি সংখ্যক মানুষকে ঘরছাড়া করেছিল: IPPC Report

  • রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২০ সালে দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি মানুষকে ঘর ছাড়তে হয়েছিল।

সব থেকে বেশি সংখ্য়ক মানুষ ঘরছাড়া হয়েছিলেন কিসে জানেন? ইন্টারগভার্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ(আইপিসিসি) রিপোর্ট অনুসারে ২০২০ সালের মে মাসে আমফান আছড়ে পড়েছিল বাংলার উপকূলবর্তী এলাকায়। আর তাতেই সবথেকে বেশি সংখ্যক মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছিলেন। উৎখাত হয়েছিলেন তাঁদের বাসস্থান থেকে। আর এটা ছিল গত ১০০ বছরের মধ্যে অন্যতম শক্তিশালী ঝড়। গোটা রাজ্যে অন্তত ১০০জনের মৃত্যু হয়েছিল ঝড়ে।

রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০২০ সালে দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি মানুষকে ঘর ছাড়তে হয়েছিল। সংখ্য়াটা প্রায় ২.৪ মিলিয়নের কাছাকাছি। ৮০০,০০০ মানুষকে অন্য জায়গায় সরিয়েছিল সরকার। অন্যদিকে চলতি সপ্তাহের এই রিপোর্টের দ্বিতীয় পর্বও প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে গোটা দেশ জুড়ে আবহাওয়ার চরম খামখেয়ালিপনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। 

এদিকে জেনেভার এনজিও দ্য ইন্টারনাল ডিপ্লেসমেন্ট মনিটরিং সেন্টার জানিয়েছে, বাংলাদেশ, মায়ানমার, ভারত, ভুটান মিলিয়ে ওই ঝড় প্রায় ৫ মিলিয়ন মানুষকে ঘর ছাড়া করেছিল। দুর্যোগের কারণে ঘরছাড়াদের সংখ্যার নিরিখে এটাও সেবছর গোটা বিশ্বের মধ্যে সবথেকে বেশি। এদিকে আবহাওয়ার খামখেয়ালিপনা নিয়ে কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী ভূপেন্দ্র যাদব বলেন, বহু সমীক্ষায় আবহাওয়ার পরিবর্তনের কথা উল্লেখ করা হচ্ছে। তবে গোটা বিষয়টি অত্য়ন্ত জটিল ব্যাপার। এদিকে ওই ঝড়ের সঙ্গে তৎকালীন সময়ে লকডাউনের জেরে দুষণ কমার প্রসঙ্গও আনা হয়েছে। তবে আবহাওয়াবিদ কেজে রমেশ জানিয়েছেন, লকডাউন স্থলভাগে দুষণ কমাতে পারে।তবে তার প্রভাব সাইক্লোনে খুবই কম।

 

বন্ধ করুন