বাড়ি > ঘরে বাইরে > ইতিহাসে প্রথমবার! জুনে মহারাষ্ট্রে উপকূলে আছড়ে পড়ার মুখে ঘূর্ণিঝড়, ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা মুম্বইয়ে
নিসর্গের প্রভাবে মুম্বইয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এপি)
নিসর্গের প্রভাবে মুম্বইয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য এপি)

ইতিহাসে প্রথমবার! জুনে মহারাষ্ট্রে উপকূলে আছড়ে পড়ার মুখে ঘূর্ণিঝড়, ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা মুম্বইয়ে

  • নিসর্গের প্রভাবে মুম্বইয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা।

তথ্য বলছে, ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত মহারাষ্ট্র উপকূলে জুনে কোনও ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়েনি। নিসর্গের পূর্বাভাস মিলে গেলে আগামী বুধবার নয়া ইতিহাস রচিত হবে। একইসঙ্গে আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, ঝড়ের গতিবেগ মারাত্মক না হলেও নিসর্গের প্রভাবে মুম্বইয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হবে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পূর্ব-মধ্য আরব সাগরের উপর অবস্থিত গভীর নিম্নচাপটি মঙ্গলবার সকালে অতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এদিকে আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আপাতত (মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটের সময়) মুম্বইয়ের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমে ৪৩০ কিলোমিটার, পানজিমের দক্ষিণ-পশ্চিমে ২৮০ কিলোমিটার এবং সুরাতের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমে ৬৪০ কিলোমিটার দূরে আছে নিসর্গ। পরবর্তী ১২ ঘণ্টায় নিসর্গ প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে।

তারপর বুধবার বিকেল নাগাদ প্রবল ঘূর্ণিঝড় হিসেবে মুম্বই থেকে ৯৪ কিলোমিটার দূরে রায়গড় জেলার আলিবাগের কাছে আছড়ে পড়বে নিসর্গ। সেই সময় ঝড়ের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার। তা সর্বোচ্চ ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটারেও পৌঁছে যেতে পারে।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, নিসর্গ স্থলভূমিতে প্রবেশ করার সময় জোয়ারের থেকেও ১-২ মিটার বেশি জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। তার জেরে মুম্বই, থানে এবং রায়গড় জেলার নীচু এলাকাগুলি জলের তলায় চলে যাবে। জোয়ারের থেকে ০.৫-১ মিটার বেশি উঁচু ঢেউয়ের কারণে রত্নাগিরি জেলায় একই পরিস্থিতি হবে। 

একইসঙ্গে মুম্বই, থানে, রায়গড়, সিন্ধুদুর্গ, পালঘরের বিভিন্ন অংশ অতি ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। বৃষ্টির পরিমাণ ২০ মিলিমিটারের বেশি হতে পারে। মৌসম ভবনের ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত বিভাগের প্রধান সুনীতা দেবী বলেন, ‘আলিবাগের খুব কাছে স্থলভূমিতে প্রবেশ করবে (নিসর্গ)। তবে মুম্বইয়েও ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।’

কী কারণে ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে, সেই ব্যাখ্যা দিয়েছেন ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ট্রপিক্যাল মেটেরোলজির আবহাওয়া বিজ্ঞানী ম্যাথু রক্সি কোল। তিনি জানান, নিসর্গের প্রত্যক্ষ প্রভাব নিয়ে শুধু চিন্তা করলে হবে না। পূর্বাভাস অনুযায়ী ২০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে। একইসঙ্গে নিসর্গ স্থলভূমিতে প্রবেশের সময় ৩-৬ মিটার উঁচু জলোচ্ছ্বাসের পূর্বাভাস দিয়েছে ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল সেন্টার ফর ওশেন ইনফরমেশন সার্ভিসেস। ম্যাথু বলেন, ‘৩ জুন সকালে জোয়ারের সময় যদি এটা মুম্বইয়ে হয়, তাহলে বৃষ্টি, ঝড় এবং ঢেউ মিশেলে ভাসবে শহর। যা ইতিমধ্যে বদ্ধ হয়ে আছে। সমুদ্রের জলস্তর বাড়তে থাকার পরিস্থিতিতে এইসব ঘটনাগুলি মিলে একটি জটিল ঘটনা হতে পারে।’

বন্ধ করুন